,
সংবাদ শিরোনাম :

খোরদোয় বোরো ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

02 Kalaroa Dan

খোরদো (কলারোয়া) প্রতিনিধি \ পথের কিনার পাতা দোলাইয়া করে সদা সংকেত, সবুজে হলুদে সোহাগ ঢুলায়ে আমার ধানের ক্ষেত, ছড়ায় ছড়ায় জড়াজড়ি করি বাতাসে ঢলিয়ে পড়ে’ পল­ী কবি জসীমউদ্দীনের ‘ধানক্ষেত’ কবিতার মতো কলারোয়া উপজেলার খোরদো গ্রামে যেদিকে তাকানো যায়, শুধু বোরো ধানের দিগন্ত বিস্তীর্ণ সবুজ শ্যমলিমা মাঠ প্রান্তর। উপজেলার ১২ টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা যার মধ্যে দেড়ায়া ইউনিয়নের খোরদো চিত্র সবুজে ঘেরা। খোরদোয় যেদিকে চোখ যায় শুধু দেখি বোরো ধানের সবুজের দোল খাওয়া ক্ষেত আর ক্ষেত। ফসলের মাঠে সবুজ গাছে সোনালী ধানের শীষ। বাতাসে একই তালে মাথা দোলাচ্ছে । এলোমেলো হাওয়ায় দুলছে ধানক্ষেতগুলো। কপোতক্ষ নদী বিধৌত এলাকাগুলোর ধানক্ষেতের স্বর্ণালি সবুজ রূপ যেন আরো আকর্ষণীয়, আরো অপরূপ । যেন শিল্পীর তুলিতে আঁকা নিখুঁত ছবি। আহা! এ কী দৃশ্য দেয়াড়া ইউনিয়নের খোরদো মাঠে প্রান্তরে। উঁচু-নিচু সমতল সব এলাকায় ধানের একই দৃশ্য। গত বছর আমন ধানের বাম্পার ফলন হওয়ায় ও বাজারদর ভালো থাকায় এবারো কৃষকরা রাত-দিন সমানভাবে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন ফলন ফলিয়ে ভালো দামের আশায়। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় এবার পোকা-মাকড় ও রোগ বালাই ছিল না বললেই চলে। মাঠ ভরা ফসল দেখে হাসি ফুটে কৃষকের মুখে নতুন করে কোনো প্রাকৃতি দুর্যোগ না হলে এবার বোরোর ফলন কয়েক বছরের রেকর্ড ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা করছেন এ অঞ্চলের কৃষকরা। এররই মধ্যে অনেক জমির ধানের শীর্ষ দোল খাচ্ছে। আবার কিছু জমির ধান গাব আসতে শুরু করেছে। ক্ষেতে ফলন দেখেই কৃষক সুন্দর আগামীর স্বপ্ন বুনছেন। ঘরে ধান এলে বিক্রি করে কেউ মেয়ের বিয়ে দেবেন, কেউ ছেলের বউ আনবেন ঘরে।

Share
[related_post themes="flat" id="250149"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com