,
সংবাদ শিরোনাম :
» « একনেকে ৪ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ইভিএম কেনার প্রকল্প অনুমোদন» « সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় দুঃস্থ পরিবার ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মাঝে টিন বিতরন» « সুলতানপুর উঠান বৈঠকে সরকারের উন্নয়ন তুলে ধরলেন সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি» « কবি নজরুল ইনস্টিটিউটের সংবাদ সম্মেলন ॥ আজ সাতক্ষীরায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে জাতীয় নজরুল সম্মেলন» « সাতক্ষীরায় আদালতের নির্দেশ অমান্য করায় সাবেক ডিসি ও ইউএনও সহ তিন জনের কারাদন্ড» « পারুলিয়া ও কুলিয়ায় সমাবেশে অধ্যাপক ডাঃ আ,ফ,ম রুহুল হক এম,পি» « নজরুল ইসলামের নৌকার স্বপক্ষে পথসভা» « ভাঙ্গনের কবলে মুন্সীগঞ্জ বাজার রোড» « মরহুম চেয়ারম্যান মোশাররফের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া» « জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহের পুরস্কার বিতরণকালে বিভাগীয় কমিশনার ॥ শিক্ষার্থীরা আগামীতে বিশ্বকে প্রতিনিধিত্ব করবে» « কুয়েটকে বিশ্বসেরা বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করতে চাই ॥ কুয়েট ভিসি প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন

মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধন: গাজায় সংঘর্ষে নিহত ৬০

04

এফএনএস : জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধনকে ঘিরে উত্তেজনার মধ্যে গাজা-ইসরায়েল সীমান্তে চলমান বিক্ষোভে ইসরায়েলি সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে অন্তত ৬০ ফিলিস্তিনি নিহত এবং ২,৭০০ জন আহত হয়েছে। ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা একথা জানিয়েছেন। ২০১৪ সালের গাজা যুদ্ধের পর একদিনে ফিলিস্তিনি নিহতের এ সংখ্যা এটিই সর্বোচ্চ। সোমবার জেরুজালেমে আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস খোলা হয়েছে। এতে ক্ষুব্ধ হয়েছে ফিলিস্তিনিরা। তারা এ পদক্ষেপকে পুরো নগরীর ওপর ইসরায়েলি শাসনের পক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের স্পষ্ট সমর্থন হিসাবেই দেখছে। যে জেরুজালেমের পূর্বাঞ্চলকে ফিলিস্তিনিরা নিজেদের বলে দাবি করে আসছে। সোমবার মার্কিন প্রতিনিধি এবং ইসরায়েলি নেতাদের উপস্থিতিতে এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দূতাবাস উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী ঘোষণায় ইসরায়েলে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত ডেভিড ফ্রেইডম্যান বলেন, “আজ আমরা ইসরায়েলের জেরুজালেমে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস খুলছি।” ওদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বক্তব্য রেখেছেন ভিডিও লিংকের মাধ্যমে। তিনি বলেন, “ইসরায়েল একটি সার্বভৌম জাতি। তাদের নিজেদের রাজধানী নির্ধারণের অধিকার আছে। কিন্তু বহুদিন ধরে আমরা এই সুষ্পষ্ট বিষয়টিকে স্বীকৃতি দিতে পারিনি।” একটি দীর্ঘস্থায়ী শান্তি প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার জন্যও ট্রাম্প প্রতিশ্র“তিব্ধ বলে জানান। অন্যদিকে, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু দূতাবাসের উদ্বোধনী বক্তব্যে ট্রাম্পকে তার প্রতিশ্রুতি রক্ষা করার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন এবং দিনটিকে ইসরায়েলের জন্য ‘গৌরবজ্জ্বল দিন’ বলে বর্ণনা করেছেন। ফলিস্তিনিরা কয়েক সপ্তাহ ধরে গাজায় বিক্ষোভ করে আসলেও জেরুজালেমে দূতাবাস খোলার এ দিনেই নিহতের সংখ্যা বেড়েছে। দূতাবাস উদ্বোধনের আগে দিয়ে গাজা সীমান্তে ক্ষোভে ফেটে পড়ে ফিলিস্তিনিরা। সংঘর্ষে নিহতদের মধ্যে ১৮ বছরের কম বয়সী ৬ শিশু আছে এবং হুইলচেয়ারে চলাফেরা করা এক ব্যক্তিও আছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ছবিতে হুইলচেয়ারে বসা এক ফিলিস্তিনিকে গুলতি দিয়ে পাথর ছুড়তে দেখা যায়। ‘গ্রেট মার্চ অব রিটার্ন’ আন্দোলনের অংশ হিসাবে গাজার শাসনক্ষমতায় থাকা হামাসের নেতৃত্বে ফিলিস্তিনিরা গত ছয় সপ্তাহ ধরে সীমান্তে বিক্ষোভ করে আসছে। বিক্ষোভকারীরা বেষ্টনি ভাঙার চেষ্টা করছে। সোমবার ৪০ হাজার ফিলিস্তিনি ১৩ টি স্থানে বিক্ষোভে অংশ নিয়েছে বলে জানিয়েছে ইসরায়েল। নিজ ভূমিতে ফেরত যাওয়ার অধিকারের দাবিতে গত ৩০ মার্চ থেকে ফিলিস্তিনিরা গাজা সীমান্তে বিক্ষোভ শুরু করে। বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত ১০৪ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। এ হত্যাকাণ্ড নিয়ে আন্তর্জাতিক বিশ্ব উদ্বেগ প্রকাশ করলেও যুক্তরাষ্ট্র ইসরায়েলকেই সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। জেরুজালেমে উদ্বোধন করা নতুন মার্কিন দূতাবাসের সামনে ফিলিস্তিনি পতাকা ওড়ানো বিক্ষোভকারীদের সঙ্গেও সোমবার ইসরায়েলি পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। আটক হয়েছে কয়েকজন বিক্ষোভকারী। জেরুজালেমে বর্তমানে অবস্থিত মার্কিন কনস্যুলেট ভবনের ভেতরই ছোট আকারে দূতাবাসের কাজ শুরু হচ্ছে সোমবার থেকে। পরে ইসরায়েলের তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস পুরোপুরি উঠে গেলে তখন বড় একটি জায়গা খুঁজে নিয়ে সেখানে দূতাবাস ভবন করা হবে। ইসরায়েল রাষ্ট্রের ৭০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপনের দিনটিতেই মার্কিন দূতাবাসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হল। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ইসরায়েলে যান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কন্যা ইভাঙ্কা ও তার স্বামী জারেড কুশনার। তারা দুজনই হোয়াইট হাউসের জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা। কুশনার-ইভাঙ্কা দম্পতির পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী স্টিফেন মিউচিন ও উপ-পরাষ্ট্রমন্ত্রী জন সুলিভান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। তেল আবিব থেকে মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে সরিয়ে আনার এ সিদ্ধান্তকে ইসরায়েল প্রশংসা করলেও ফিলিস্তিনিরা শুরু থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়ে এর প্রবল বিরোধিতা করে আসছে। দূতাবাস খোলার বিরুদ্ধে প্রতিবাদের জন্য জেরুজালেমে জমায়েত হয় তারা। জেরুজালেমকে নিজেদের ‘শাশ্বত ও অখণ্ড’ রাজধানী বলে বিবেচনা করে ইসরায়েল। অপরদিকে, ফিলিস্তিনিরা তাদের ভবিষ্যৎ রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে পূর্ব জেরুজালেম দাবি করে। তারা ট্রাম্পের সিদ্ধান্তে অত্যন্ত ক্ষুব্ধ। গত বছর জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এর মাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে নিরপেক্ষ থাকার কয়েক দশক ধরে অনুসৃত নীতি থেকে সরে আসে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের এ সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে বিশ্বের অধিকাংশ দেশ।

Share
[related_post themes="flat" id="254294"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com