,
সংবাদ শিরোনাম :
» « একনেকে ৪ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ইভিএম কেনার প্রকল্প অনুমোদন» « সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় দুঃস্থ পরিবার ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মাঝে টিন বিতরন» « সুলতানপুর উঠান বৈঠকে সরকারের উন্নয়ন তুলে ধরলেন সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি» « কবি নজরুল ইনস্টিটিউটের সংবাদ সম্মেলন ॥ আজ সাতক্ষীরায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে জাতীয় নজরুল সম্মেলন» « সাতক্ষীরায় আদালতের নির্দেশ অমান্য করায় সাবেক ডিসি ও ইউএনও সহ তিন জনের কারাদন্ড» « পারুলিয়া ও কুলিয়ায় সমাবেশে অধ্যাপক ডাঃ আ,ফ,ম রুহুল হক এম,পি» « নজরুল ইসলামের নৌকার স্বপক্ষে পথসভা» « ভাঙ্গনের কবলে মুন্সীগঞ্জ বাজার রোড» « মরহুম চেয়ারম্যান মোশাররফের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া» « জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহের পুরস্কার বিতরণকালে বিভাগীয় কমিশনার ॥ শিক্ষার্থীরা আগামীতে বিশ্বকে প্রতিনিধিত্ব করবে» « কুয়েটকে বিশ্বসেরা বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করতে চাই ॥ কুয়েট ভিসি প্রফেসর ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন

ভ্যানের প্যাডেলে ঘুরছে চালক সাইফুলের ভাগ্য

21 Kaligonj Van Chalok

মথুরেশপুর (কালিগঞ্জ) প্রতিনিধি ঃ কালিগঞ্জ উপজেলার মথুরেশপুর ইউনিয়নের বসন্তপুর গ্রামের ভূমিহীন ও হতদরিদ্র আব্দুল আলিম (৬০)। পেশায় গ্রাম বাংলার বাইসাইকেল হেলিকপ্টার চালক। তার ৩ ছেলে বড়টি জন্ম থেকেই প্রতিবন্ধী আব্দুল, মানসিক ভারসাম্যহীন ভ্যান চালক সাইফুল (২৩) ও ছোট মাফরুজ (১০) স্থানীয় এক মাদ্রসার ৩য় শ্রেনীর ছাত্র। তবে প্রতিবন্ধী ছেলেটি ২০ বছর বয়সে মারা যায়। তার ৩ শতক বসতভিটায় ছোট জরাজীর্ণ কুড়ে ঘরে পরিবারকে নিয়ে কোন রকমে বসবাস করছে। তিনি সারা দিন হেলিকপ্টারের প্যাডেল মেরে একা যে টাকা আয় করেন তাদিয়ে সংসার ঠিকমতো চলে না। তাই পারিবারিক অসচ্ছলতার কারণে উপায় অন্ত না থাকায় বাধ্য হয়ে দুঃখ কষ্টে মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলের হাতে তুলে দেন ভ্যান। প্রতীবেশীরা জানান, আব্দুল আলিমের মেঝ ছেলে সাইফুর র্বতমান ভ্যান চালক। অভাবের তাড়নায় ভ্যান চালিয়ে সে জীবিকা নির্বাহ করে । এতে তার উপার্জিত অর্থ বাবার হাতে তুলে দিয়েও তাদের অভাবের সংসার ঠিকমত চলে না। তার হাত পায়ে শক্তি খুব কম, কথাও বলতে পারেনা ঠিকমত। তবুও জীবন সংগ্রামে হারতে নারাজ এই সাইফুল। বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে নাািজমগঞ্জ বাজারে খালি ভ্যান নিয়ে বাড়ি যাওয়ার পথে কথা হয় সাইফুলের সাথে। তিনি জানান, আমি ভ্যান আর আব্বা হেলিকপ্টার চালিয়ে সংসার চালাই। সকাল থেকে এর্পযন্ত কত টাকা আয় হয়েছে জানতে চাইলে সে জানান, সকালে ৭টায় বাহির হয়ে ৫৫টাকা আয় করেছি। কারণ আমার ব্যাটারি ভ্যান নাই, ব্যাটারি ভ্যানে লোক উঠছে আমি কি করবো। হেলিকপ্টার চালক সাইফুলের বাবা জানান, ঠিকমতো সংসারই চালাতে পারছিনা। আমি আর আমার ছাবাল দুজন সংসারে আয় করি তাতে কোন রকমে সংসার চলে। ছাবাল প্রতিদিন ৮০-৯০টাকা পা ভ্যানে আয় করে আমাকে দেয়। তার মটর ভ্যান নাইতো প্যাসেনজার উঠতে চায় না। এখন সবাই মটর ভ্যান পছন্দ করে। আবার আমার হেলিকপ্টারেও এখন আয়ও কম। কোন ভাতা পান কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ওর্য়াডের মেম্বার চেয়ারম্যানের কাছে বয়স্ক ভাতা র্কাড চেয়েছি তারা বলছে পরে দেবো। তিনি আরও বলেন, আমি মরে গেেল হয়ত এই অপেক্ষার শেষ হবে। ভাঙা ঘরে বাস করি, এক বেলা খাই তো দুইবলো না খেয়ে থাকি। আমরা হয়তো সরকারী সহযোগীতা পাওয়ার যগ্য না। তাই সরকারের নানাবিধ সহায়তা, আশ্রায়ণ ও গৃহয়াণ প্রকল্প, ভাতা বা খাদ্য সহায়তার মাধ্যমে এই হত দরিদ্র পরিবারটির মুখে একটু হাঁসি ফুটুক এই প্রত্যাশায় সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের দৃষ্টি র্আকষণ করেছেন এলাকার সুধিসমাজ।

Share
[related_post themes="flat" id="261483"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com