,
সংবাদ শিরোনাম :
» « বিশ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে দেশের ওষুধের বাজার» « সাতক্ষীরায় সফটরক প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগে ইউনাইটেড ক্লাব চ্যাম্পিয়ান» « বঙ্গবন্ধু ও নেতাজী জাতীয় শহীদ মিনারের লক্ষ্যে সাইকেল র‌্যালি» « কেমন আছে প্রিয় সুন্দরবন (চার) ॥ কটকা সমূদ্র সৈকত সৌন্দর্যের হাতছানি দিচ্ছে» « সাতক্ষীরায় দুই দিন ব্যাপী ভালবাসার শব্দমালা আবৃত্তি উৎসব পুরুস্কার বিতরণীর মধ্যে সমাপ্ত» « সাতক্ষীরায় গৃহবধু আঁখির হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত» « আমবয়ানের মধ্য দিয়ে বিশ্ব ইজতেমা শুরু» « বড় ধরনের সংকটগুলোতে ডব্লিউএইচওকে প্রায়ই ভুল পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় -প্রধানমন্ত্রী» « কবি আল মাহমুদের বিদায়» « সাতক্ষীরায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে রং পালিশ শ্রমিক ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত» « যশোরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

হিন্দু মন্দিরে পশু বলি নিষিদ্ধ করছে শ্রীলঙ্কা

এফএনএস আন্তর্জাতিক ডেস্ক: হিন্দু মন্দিরে ধর্মীয় আচারের অংশ হিসাবে পশু বা পাখি বলি দেওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির সিদ্ধান্ত নিয়েছে শ্রীলঙ্কা সরকার। শ্রীলঙ্কা সরকারের একজন মুখপাত্রের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, এ বিষয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের আনা একটি প্রস্তাব বুধবার অনুমোদন করেছে দেশটির মন্ত্রীসভা। হিন্দুদের অধিকাংশ উদারপন্থি সংগঠন সরকারের এই সিদ্ধান্তে সমর্থন দিয়েছে বলেও দাবি করেছেন ওই কর্মকর্তা। দেবতার প্রতি নৈবদ্য হিসেবে মন্দিরে পাঠা, ষাঁড় বা মোরগ বলি দেওয়া হিন্দু ধর্মের রীতি। কিন্তু বৌদ্ধ প্রধান শ্রীলঙ্কায় প্রাণী হত্যার এই আচার নিয়ে অসন্তোষ দীর্ঘদিনের। বিবিসি লিখেছে, বৌদ্ধদের বিভিন্ন সংগঠন ও প্রাণী অধিকার আন্দোলনের কর্মীরা হিন্দু ও মুসলমসানদের উৎসবে পশু বলি ও কোরবানি বন্ধের দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন চালিয়ে আসছে। হিন্দুদের মধ্যে অনেকে পশু বলিতে অংশ নেন না। কিন্তু যারা নেন, তারা শ্রীলঙ্কা সরকারের ওই নিষেধাজ্ঞাকে ধর্মীয় আচার পালনের স্বাধীনতায় বাধা হিসেবে দেখছেন। তারা বলছেন, ধর্ম বিশ্বাসের অংশ হিসেবে পশু বলি দেওয়ার এই রেওয়াজ চলে আছে প্রাচীনকাল থেকে, আর তা চলতে দেওয়াই উচিৎ। বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, শ্রীলঙ্কার মুসলমানদের পশু কোরবানির বিষয়টি আপাতত নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসছে না। ভারত মহাসাগরের এই দ্বীপ দেশে জনসংখ্যার দিক দিয়ে মুসলমানদের অবস্থান তৃতীয়। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সেখানে মুসলিমবিরোধী সহিংসতার বেশ কিছু ঘটনা ঘটেছে, যাতে বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছেন, মুসলমানদের ঘরবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাঙচুরের শিকার হয়েছে।

Share
[related_post themes="flat" id="270001"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com