,
সংবাদ শিরোনাম :
» « অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে আগ্রহ বাড়ছে বিনিয়োগকারীদের» « ভিজিডি’র উপকারভোগী মহিলাদের মাঝে মুনাফাসহ সঞ্চয় ফেরত প্রদান» « ক্যান্সার আক্রান্ত অসহায় সাজেদা খাতুন ॥ গণশুনানীর মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাহায্যের আবেদন পাঠালেন» « সাতক্ষীরায় জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে ওরিয়েন্টেশন ॥ জেলায় ২ লক্ষ ৩৮ হাজার ৩২৭ জন শিশু ভিটামিন এ খাবেন» « তালায় এক মাদক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ» « চেক প্রতারনা মামলা ॥ সাবেক তাঁতীলীগ সভাপতি কারাদন্ড ও জরিমানা» « সাতক্ষীরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উদ্বোধন ॥ পুরস্কার বিতরণী আজ» « শ্যামনগর টেংরাখালী ওয়াপদা ভেঁড়িবাঁধে ভয়াবহ ভাঙ্গন ॥ পানিবন্দী হতে পারে দুই ইউনিয়নের কয়েক হাজার মানুষ» « প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ইরানের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাত» « মদিনার দরগায় বার্ষিক মেলা উপলক্ষে জারি গান অনুষ্ঠিত» « কাদাকাটিতে শ্রীমদ্ভাগবত মহোৎসব সম্পন্ন

প্রথমবারের মতো যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে ২ মুসলিম নারী

এফএনএস ডেস্ক: প্রথমবারের মতো দুজন মুসলিম নারী প্রতিনিধি সদস্য পেল যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেস। মঙ্গলবারের ভোটে মিনেসোটা ও মিশিগানের ভোটাররা তাদের প্রতিনিধি হিসেবে ইলহান ওমর ও রাশিদা তালিবকে নির্বাচিত করেছে, খবর বার্তা সংস্থা রয়টার্সের। গৃহযুদ্ধের কারণে সোমালিয়া থেকে পালিয়ে আসা ওমর একজন সাবেক শরণার্থী ও তালিব ডেট্রয়িটে জন্মগ্রহণকারী ফিলিস্তিন-আমেরিকান পিতামাতার সন্তান। তারা দুজনেই ডেমোক্রেট প্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। মিনেসোটা থেকে নির্বাচিত ইলহান ওমর সোমালিয়া থেকে আসার পর যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব পান। তিনি মিনিসোটা অঙ্গরাজ্যের আইন পরিষদেরও সদস্য ছিলেন। শিশু বয়সে তিনি চার বছর কেনিয়ার একটি শরণার্থী শিবিরে ছিলেন। দুই বছর আগে যে রাতে ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন সেই রাতে প্রথম সোমালি-আমেরিকান হিসেবে ওমর দেশটির একটি অঙ্গরাজ্যের আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। ওই প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্প সব মুসলিমের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে প্রচারণা চালিয়েছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের প্রথম হিজাব পরা সদস্য হতে যাচ্ছেন ৩৬ বছর বয়সী ওমর। অপরদিকে ৪২ বছর বয়সী তালিবও ইতিহাসের ধারা পাল্টে দেওয়া আরেকজন নারী। ২০০৮ সালে প্রথম মুসলিম নারী হিসেবে তিনি মিশিগান আইন পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। ফিলিস্তিন থেকে যুক্তরাষ্ট্রে আসা এক পরিবারের ১৪ সন্তানের মধ্যে তিনি সবার বড়। ডেট্রয়িটে তার পিতা ফোর্ড মোটর কোম্পানির একটি প্রকল্পের কর্মী ছিলেন। ইতিহাস সৃষ্টিকারী এ দুই নারীই ব্যাপকভাবে ডেমোক্রেট প্রভাবিত এলাকা থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে নির্বাচিত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ওমর বিরাট ব্যবধানে জয় পেয়েছেন।

Share
[related_post themes="flat" id="276900"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com