,
সংবাদ শিরোনাম :
» « বিশ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে দেশের ওষুধের বাজার» « সাতক্ষীরায় সফটরক প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগে ইউনাইটেড ক্লাব চ্যাম্পিয়ান» « বঙ্গবন্ধু ও নেতাজী জাতীয় শহীদ মিনারের লক্ষ্যে সাইকেল র‌্যালি» « কেমন আছে প্রিয় সুন্দরবন (চার) ॥ কটকা সমূদ্র সৈকত সৌন্দর্যের হাতছানি দিচ্ছে» « সাতক্ষীরায় দুই দিন ব্যাপী ভালবাসার শব্দমালা আবৃত্তি উৎসব পুরুস্কার বিতরণীর মধ্যে সমাপ্ত» « সাতক্ষীরায় গৃহবধু আঁখির হত্যাকারীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত» « আমবয়ানের মধ্য দিয়ে বিশ্ব ইজতেমা শুরু» « বড় ধরনের সংকটগুলোতে ডব্লিউএইচওকে প্রায়ই ভুল পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় -প্রধানমন্ত্রী» « কবি আল মাহমুদের বিদায়» « সাতক্ষীরায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে রং পালিশ শ্রমিক ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত» « যশোরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

কলকাতা ফিরছেন শুটিং না করেই

09-

এফএনএস বিনোদন: গত ২৩ জানুয়ারি ঢাকায় এসেছেন কলকাতা প্রবাসী চিত্রনায়িকা অঞ্জু ঘোষ। কারণটা ছিল ২০ বছর পর ঢাকাই ছবিতে কাজ করা। জীবনীভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘মধুর ক্যান্টিন’-এ মধু দার স্ত্রীর ভূমিকায় থাকবেন তিনি। সিডিউল অনুযায়ী এটির শুটিং ১ ফেব্র“য়ারি থেকে শুরু হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এদিনই তিনি ফিরে যাচ্ছেন কলকাতায়। হচ্ছে না তার শুটিং। বিষয়টি জানতে পেরে যোগাযোগ করা হয় ‘মধুর ক্যান্টিন’ ছবির নির্মাতা সাঈদুর রহমান সাঈদের সঙ্গে। তিনিবিস্তারিত বলেন, ‘পারিবারিক কারণে তিনি আগামীকাল কলকাতা যাচ্ছেন। আমাকে বলেছেন, ১০ দিন সময় লাগবে। তিনি যেহেতু বলেছেন, এর ওপর আর কথা চলে না। তবে দিদি বেশি দিন সময় নেবেন না বলেই জানিয়েছেন।’ প্রায় ২০ বছর ধরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা অঞ্জু। প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার আগে অঞ্জু ঘোষ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভোলানাথ অপেরার হয়ে যাত্রায় নৃত্য পরিবেশন করতেন ও গান গাইতেন। ১৯৮২ সালে এফ কবীর চৌধুরী পরিচালিত ‘সওদাগর’-এর মাধ্যমে তার চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে। এই ছবিটি ব্যবসায়িকভাবে সফল ছিল। রাতারাতি তারকা বনে যান তিনি। অঞ্জু বাণিজ্যিক ছবির তারকা হিসেবে যতটা সফল ছিলেন, সামাজিক ছবিতে ততটাই ব্যর্থ হন। ১৯৮৭ সালে অঞ্জু সর্বাধিক ১৪টি সিনেমায় অভিনয় করেন, মন্দা বাজারে যেগুলো ছিল সফল ছবি। ১৯৮৯ সালে মুক্তি পাওয়া ‘বেদের মেয়ে জোসনা’ অবিশ্বাস্য ব্যবসা করে। সৃষ্টি করে নতুন রেকর্ড। তার অভিনীত উল্লেখযোগ্য ছবির মধ্যে রয়েছে, সওদাগর, নরম গরম, আবে হায়াত, রাজ সিংহাসন, পদ্মাবতী, রাই বিনোদিনী, সোনাই বন্ধু, বড় ভালো লোক ছিল, আয়না বিবির পালা, আশা নিরাশা, নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা, মালাবদল, আশীর্বাদ প্রভৃতি। ১৯৯১ সালে বাংলা চলচ্চিত্রে নতুনদের আগমনে তিনি ব্যর্থ হতে থাকেন। এর কয়েক বছরের মাথায় তিনি দেশ ছেড়ে চলে যান ভারতে এবং কলকাতার চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে থাকেন। সর্বশেষ তিনি ভারতের বিশ্বভারতী অপেরার যাত্রাপালায় নিয়মিত অভিনয় করতেন।

Share
[related_post themes="flat" id="284686"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com