,
সংবাদ শিরোনাম :
» « দুর্গম এলাকাকে অগ্রাধিকার দিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার উদ্যোগ» « সাতক্ষীরা ডিজিটাল ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের স্বাস্থ্য সেবায় এগিয়ে চলা এবং অত্যাধুনিক মেশিনের উপস্থিতি (এক)» « সাতক্ষীরার ফিংড়ী কুঁচে চাষ প্রকল্প উদ্বোধন করলেন এমপি রবি» « জোড়া সেঞ্চুরিতে সেমির আগে ভারতের বড় জয়» « তেলবাহী ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে কলেজ প্রভাষিকা নিহত: আহত-১, গ্রেফতার-২» « শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদের পৌর আট নং ওয়ার্ড কমিটি গঠন» « কাকবাসিয়ায় খেয়াঘাট না থাকায় পারাপারে ভোগান্তি» « চীন সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী» « যশোর র‌্যাবের পৃথক অভিযানে ২২৮ পিচ ইয়াবা সহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক» « সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজ আইডিজি এর জন্য মনোনীত» « বাজার ব্যবস্থা অস্থিতিশীল এবং মসলা বাজারে আগুন

চিঠি এবং ডাক বাক্স

01 Kaligonj Dak

আশেক মেহেদী কালিগঞ্জ থেকে ॥ চিঠি,চিঠি, চিঠি আছে বলে আর ডাক দেয়না ডাক পিয়নে। আগেকার দিনে পাড়া মহল্লায় দিনের একটি নির্দিষ্টি সময়ে টুং টাং সাইকেলের ঘন্টি বাজিয়ে ছুটে চলতেন একজন ডাক পিয়ন, আর নতুন নতুন আশা-নিরআশার খবর কখনও বা বিদেশে কর্মরত প্রিয় জনের পাঠানো অর্থের আশায় উৎসুক প্রিয়জন সন্ধান করতেন তার প্রিয় জনের চিঠি। আধুনিক যান্ত্রিক সভ্যতার যুগে সেল ফোন নামক মুষ্ঠি যন্ত্রের সর্বগ্রাসী আগ্রাশনে বিলুপ্তীর পথে চিঠি নামক শৈল্পিক এই যোগাযোগ মাধ্যম। যে টুকু আছে অল্প কিছু সরকারী দপ্তর বা সাধারণ অফিস আদালতের রুটিন কাজের জন্য। চিঠি নিয়ে লিখতে বসলেই প্রথমে যে বিষয় গুলো সামনে আসে তা হচ্ছে একজন ডাক পিয়ন,ডাক হরকরা, পোষ্টম্যান, রানার, ডাক বাবু, পোষ্ট মাষ্টার বা একটা গুমটি ঘর। এসব নিয়ে কম লেখা হয়নি, সেখানে দেখা গেছে রতন নামক পোস্ট মাষ্টার মশাইয়ের সেই গ্রাম্য গৃহকর্মী। কখনও দেখা গেছে ডাক হরকরার সেই সততা, যে তার কাছ থেকে ছিনতাইকৃত অন্যের টাকার জন্য নিজ সন্তানের বিরুদ্ধে আদালতে স্বাক্ষ্য দিয়েছেন। রবি ঠাকুরের অমলকেও আমরা চিনি, সে অসুস্থ্য ছেলেটি নিজ গৃহে শুয়ে শুয়ে ডাক ঘরের ঢং ঢং ঢং ঘন্টার শব্দ শুনছে আর অপেক্ষা করেছে রাজার চিঠির। অথবা সেই রানার সে সূর্য ওঠার আগে ডাক পৌছে দেওয়ার জন্য হাতে লন্ঠন আর বল্লব নিয়ে গভীর নির্জন পথে ঘোঁর অন্ধকার রাতে ছুটে চলেছে একা। গভীর রাতে লন্ঠন জ্বেলে ভাঙ্গা ভাঙ্গা হাতের অক্ষরে প্রবাসী প্রিয়কে উদ্দেশ্য করে গ্রাম্য বালার অশ্র“ কাজল ধোয়া চিঠি। চিঠি ডাক বিভাগ, ডাক পিয়ন, ডাক হরকরা, রানার ইত্যাদি নিয়ে যে বিস্তর লেখা হয়েছে সেখানে লেখা হয়নি ডাক বিভাগের একটি অন্যতম প্রধান বস্তুর কথা। প্রেরক থেকে প্রাপকের ঠিকানায় পৌছানোর প্রথম ধাপটি, হ্যাঁ ঠিক ধরেছেন, একটি ডাক বাক্স। ডাক বিভাগ জনগণের কাছ থেকে চিঠি সংগ্রহের জন্য নির্দিষ্ট এলাকায়, বিভিন্ন জনাকীর্ণ স্থানে ডাক বাক্স স্থাপন করে থাকে। বিভিন্ন প্যাটান, ভিন্ন ভিন্ন আকারের হয়ে থাকে এই ডাক বাক্স। মানুষ তার প্রিয় জনের খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য প্রিয় জনের উদ্দেশ্যে তার লিখিত পত্রটি এই ডাক বাক্সে ফেলে থোকেন। আজকের মুঠো ফোনের দৌরাত্ব ডাক বাক্স কে করে ফেলেছে বাহুল্য, অনেকটা অপ্রাসাঙ্গীক, অপাংতেয়। তবুও এখনও রাস্তার মোড়ে, জনাকীর্ণ অফিস আদালত পাড়া অর্থবা বাজারের প্রদর্শনীয় স্থানে অবহেলায় অনাদরে দাড়িয়ে থাকতে, অথবা গাছে ঝুলে থাকতে দেখা যায় এক সময়কার এই অতি প্রয়োজনীয় ডাক বাক্স।

Share
[related_post themes="flat" id="285481"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com