,
সংবাদ শিরোনাম :
» « জাল নোট কারবারিদের নিয়ন্ত্রণে নানা উদ্যোগ» « সাতক্ষীরা শহরের প্রাণকেন্দ্রে পাইকারি লিছুর হাট : রাতেই ব্যবসায়ীদের শহরে আগমন» « সাতক্ষীরায় সরকারী কর্মকর্তা ও গণ্যমান্য ব্যক্তির সম্মানে এমপি রবির ইফতার মাহফিল» « দেবহাটায় তথ্য অধিকার বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত» « খুলনায় ডিবি পুলিশের পৃথক অভিযানে অস্ত্র, গুলি মাদক সহ দুই আসামী আটক» « মুক্তিযোদ্ধা আলেম ওলামা ও এতিমদের সম্মানে প্রধানমন্ত্রীর ইফতার» « মধুমাস জ্যৈষ্ঠ এবং বাস্তবতা» « বিশ্বের সবচেয়ে পুরনো মসজিদ ॥ গ্রেট মস্ক অব আলেপ্পো (সিরিয়া ৭১৫ সাল)» « কার দখলে দিল্লি? মোদী, রাহুল না অন্য কেউ?» « কলারোয়ায় ছাত্রলীগ নেতার আঙুল কেটে নেওয়ায় ঘটনায় থানায় মামলা ॥ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত» « নুরনগরে দীর্ঘদিনের চলাচলের পথ বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ

রোগের নাম লুপাস এফ

এসএস স্বাস্থ্য: লুপাস রোগটির আরেক নাম সিস্টেমিক লুপাস ইরাথেমেটাস বা এসএলই। এটি একটি অটোইমিউন ডিজিজ, মানে ইমিউন সিস্টেম নিজের শরীরের বিরুদ্ধে কাজ করে। লুপাস মূলত কম বয়সী মেয়েদের রোগ। ১৫ থেকে ৪৪ বছর বয়সী মেয়েরাই বেশি আক্রান্ত হয়। শরীরের বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গ ও কোষ আক্রান্ত হয় বলে এই রোগের লক্ষণ বিচিত্র। নানামুখী উপসর্গের কারণে রোগনির্ণয়ে প্রায়ই বিলম্ব ঘটে। জনসচেতনতা বাড়ানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্রের লুপাস ফাউন্ডেশন সম্প্রতি একটি সহজ চেকলিস্ট তৈরি করেছে, যা রোগ লক্ষণের সঙ্গে মিলিয়ে নিয়ে সাধারণ মানুষও সতর্ক হতে পারেন। নিচের লক্ষণগুলো দীর্ঘ মেয়াদে বা একত্রে বেশ কয়েকটি উপস্থিত থাকলে আপনার লুপাস হয়েছে বলে সন্দেহ করতে পারেন। ত্বক সূর্যালোকের প্রতি সংবেদনশীল ত্বক, লাল চাকা নাক থেকে গালে দুই পাশে প্রজাপতির পাখার মতো র‌্যাশ অতিরিক্ত চুল পড়া সন্ধি ও পেশি তিন মাসের বেশি সময় ধরে একাধিক অস্থি সন্ধিতে ব্যথা বা ফোলা কারণ ছাড়া ক্লান্তি ও দুর্বলতা মস্তিষ্ক ও স্নায়ু খিঁচুনি, অস্বাভাবিক আচরণ, যা এক ঘণ্টার বেশি স্থায়ী হয় দীর্ঘমেয়াদি জ¦র, যার কারণ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না হৃৎপিন্ড ও ফুসফুস বুকে ব্যথা, যা দীর্ঘ শ্বাস নিলে বাড়ে নাক কান গলা মুখের তালুতে দীর্ঘমেয়াদি ঘা রক্ত ও রক্তপরিবহন তন্ত্র রক্তশূন্যতা, রক্তে শ্বেতকণিকা বা অণুচক্রিকার অভাব ঠান্ডায় আঙুলের রং পরিবর্তন (প্রথমে সাদা, তারপর নীল, শেষে লাল) প্র¯্রাব লাল হওয়া, ফেনাযুক্ত হওয়া বা প্র¯্রাবে আমিষ যেতে থাকা মুখ চোখ পা ফুলে যাওয়া লুপাস ছোঁয়াচে নয়, বংশগত রোগও নয়। এ রোগের কোনো নিরাময় নেই, তবে সঠিক সময়ে রোগ নির্ণয় করে চিকিৎসা করলে নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়। চিকিৎসা না করলে মৃত্যুঝুঁকি আছে। সংবেদনশীল ত্বক থাকলে রোদে বেশি যাওয়া যাবে না, সানব্লক (এসপিএফ ৩০) লাগাতে হবে। লুপাস রোগী বিয়ে করতে পারবেন, সন্তানও নিতে পারবেন। তবে বিশেষ সতর্কতা জরুরি। জন্মনিয়ন্ত্রণের জন্য কনডম তাঁদের জন্য সবচেয়ে ভালো, জন্মবিরতিকরণ পিল অনেক সময় ঝুঁকিপূর্ণ। তবে রোগের তীব্রতা কম হলে, কিডনি জটিলতা ও রক্ত জমাট বাঁধার ঝুঁকি না থাকলে স্বল্পমাত্রার বড়ি খাওয়া যায়।

Share
[related_post themes="flat" id="290973"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com