,
সংবাদ শিরোনাম :
» « নতুন যুগে প্রবেশ করলো সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ॥ কাটা-ছেড়া ছাড়াই অপারেশন সেন্টার উদ্বোধন» « দৈনিক দৃষ্টিপাত’র সাংবাদিক আবু বক্করকে দেখতে সদর হাসপাতালে এমপি রবি» « নতুন যোগদানকৃত শিক্ষকগণের দু’দিন ব্যাপি ওরিয়েন্টেশন» « অসুস্থ সদর উপজেলা আ’লীগ সভাপতিকে দেখতে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এমপি রবি» « সদর হাসপাতালে স্বাস্থ্য সেবার মানোন্নয়নে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে -এমপি রবি» « মাসিক উন্নয়ন সমন্বয়, আইন শৃংখলা, সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধ কমিটির পৃথক পৃথক সভা অনুষ্ঠিত» « শ্যামনগরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ম্যুরাল এর ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন» « আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো ॥ গুনাকরকাটি খানকাহ্ শরীফের ৯৭তম বার্ষিক ওরস ও ফাতেহা শরীফ» « প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা» « সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম রানার পিতার জানাযা অনুষ্ঠিত ॥ প্রেসক্লাবের শোক» « দেশে দেশে গোয়েন্দা ॥ তারকা গোয়েন্দা ফ্রেডরিক জোবার্ট

সাইবার নাইফ চিকিৎসা টিউমার নির্মূলে

এফএনএস স্বাস্থ্য: ‘সাইবার নাইফ’ এক প্রকারের রেডিয়েশন চিকিৎসা পদ্ধতি। এ হলো বিশ্বের প্রথম ও একমাত্র রোবোটিক রেডিও সার্জারি পদ্ধতি, যার মাধ্যমে শরীরের যে কোনো অংশে থাকা টিউমার রোগের চিকিৎসা করা যায়। বিদেশে বছর দশেক আগে সাইবার নাইফ চিকিৎসা আরম্ভ হলেও ভারতে শুধুমাত্র চেন্নাইয়ের অ্যাপোলো হাসপাতালেই রেডিয়েশন পদ্ধতিতে টিউমারের চিকিৎসা করা হয়। ৫০০ জনেরও বেশি রোগী এ চিকিৎসার মাধ্যমে সুফল পেয়েছেন এ কথা জানান চেন্নাইয়ের অ্যাপোলো হাসপাতালের রেডিয়েশন অনকোলোজিস্ট ডা. দেবনারায়ণ দত্ত। এ চিকিৎসায় কোনো ব্যথা, যন্ত্রণা অনুভব হয় না। এ ছাড়া রোগীকে অচেতনও করতে হয় না। এ পদ্ধতি ব্যবহার করলে খুব কম সময়ের মধ্যেই রোগী স্বাভাবিক ও সুস্থ হয়ে ওঠে বলে সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের দাবি। শরীরের যে কোনো অংশে যেমন মাথা, ফুসফুস, যকৃত, বৃক্ক, গল বস্নাডারের টিউমারকে হাইডোজের রেডিয়েশনের মাধ্যমে নির্মূল করা যায়। টিউমারের আকার ছোট বা বড় যাই হোক না কেন, রেডিয়েশনের মাত্রা বাড়িয়ে কমিয়ে তার চিকিৎসা করা হয়। এ চিকিৎসার কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। সাইবার নাইফ একটি অত্যাধুনিক প্রযুক্তির মেশিন, এ মেশিনের দাম প্রায় ২৫ কোটি রুপিরও বেশি। উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মানুষের মধ্যে এ ব্যাপারে সচেতনতা গড়ে তুলতে এবং এ বিশেষ পদ্ধতির চিকিৎসার সুযোগ করিয়ে দিতে প্রতি দুই মাসেই একবার করে ডা. দেবনারায়ণ দত্ত ঢাকার গেস্নাবাল টেলিমেডিসিনে বসছেন। এ ছাড়া প্রতি সপ্তাহে রোগীদের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ রেখে চলেছেন এবং বিশেষ প্রয়োজনে ভিডিও কনফারেন্স করে রোগী দেখেন। যেসব রোগীর চিকিৎসার জন্য চেন্নাই যাওয়ার প্রয়োজন আছে বলে তিনি মনে করেন, সে ক্ষেত্রে চেন্নাই গিয়ে এ চিকিৎসার সুবিধা গ্রহণ করা যায়। এতে রোগীদের সুবিধা হয়, কেননা চেন্নাই গিয়ে ডাক্তারের অ্যাপয়েন্টমেন্ট নেয়ার ঝক্কি নেই। একেবারে চিকিৎসার জন্য তৈরি হয়েই চেন্নাই অ্যাপোলো হাসপাতালে পৌঁছে যেতে পারেন। বর্তমানে অবশ্য এ সাইবার নাইফ চিকিৎসা ব্যয়সাপেক্ষ। ২ থেকে ৪ লাখ টাকা খরচ। তবে ভবিষ্যতে সাধারণ দরিদ্র মানুষের জন্য কিছু নতুন নতুন স্কিম নিয়ে আসতে চলেছে অ্যাপোলো ক্যান্সার ইন্সটিটিউট।

Share
[related_post themes="flat" id="294735"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com