,
সংবাদ শিরোনাম :
» « বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি» « বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব নরেন দাস সাতক্ষীরায়» « সৌম্যের বৌভাত : রাজকীয় আয়োজন : আন্তরিক আথিথেয়তায় মুগ্ধ অতিথিরা» « মাসজিদে কুবা’র নির্মাণ কাজ উদ্বোধন» « দিলি−র সহিংসতায় মৃত বেড়ে ৪২, হাই এলার্ট জারি» « গণসংবর্ধনায় ভূষিত হলেন ভোরের পাতা সম্পাদক ড. কাজী এরতেজা হাসান» « দৈনিক কাফেলার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও বনভোজন» « দেবহাটার সখিপুরে জেলা রোভারের মুটের উদ্বোধন করলেন অধ্যাপক রুহুল হক এমপি» « বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশের প্রতিবাদে শ্যামনগরে মিছিল ও সমাবেশ» « জেলা প্রাথমিক শিক্ষা দপ্তরের উদ্যোগে সেবারমান উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালা» « পিতার নামে এতিমখানার উদ্বোধন করলেন পুলিশ কমিশনার

আশাশুনির মানুষ সুদি কারবারে জড়িয়ে সর্বশান্ত হচ্ছে

এম এম নুর আলম ॥ ব্যক্তি, সমিতি ও এনজিও’র নামে সুদি কারবারের শিকার হয়ে আশাশুনি উপজেলার হাজার হাজার মানুষ সর্বশান্ত, বাড়িঘর ছাড়া ও চরম বিপর্যস্ত হচ্ছে। সুদে কারবারীরা বহাল তবিয়তে সরকারি নিয়মনীতি ভঙ্গ করে চড়া সুদের কারবার করে চললেও তাদের রুখে দেওয়ার ব্যবস্থা না থাকায় সমাজ হতাশ হয়ে পড়েছে। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে এখন ব্যক্তি পর্যায়ে সুদি কারবার, সমিতির নামে সরকারি নিয়ম-নীতির তুয়াক্কা না করে সুদি কারবার, সমবায় ও সমাজ সেবা অধিদপ্তরের রেজিস্ট্রেশন নিয়ে অধিদপ্তরের সাথে চুক্তিপত্রের শর্তভঙ্গ করে এবং কোন কোন নাম সর্বস্ত এনজিও চড়া সুদের কারবার চালিয়ে যাচ্ছে। সুদের টাকা শোধ দিতে না পেরে ঋণ গ্রহিতাদের অনেকে এলাকা ছাড়তে বাধ্য হচ্ছে। অনেকে সুদ গুনতে গুনতে সর্বস্ব খুইয়েও সুদ শোধ দিতে অসমর্থ হয়ে পড়ছে। ব্যবসা, চাষাবাদ, মৎস্য চাষ, গৃহস্থলী মালামাল ক্রয়, মেয়ের বিয়েসহ বিভিন্ন কারণে মানুষ সুদখোরদের দারস্থ হয়ে থাকে। এসুযোগে সুদখোর বা সুদে ঋণদ্বাতা প্রতিষ্ঠান ঋণ গ্রহিতাদের নিকট থেকে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করিয়ে নেওয়া, টাকার অংক না বসানো স্বাক্ষরকৃত ব্যাংকের চেক নিয়ে ঋণের টাকা দিয়ে থাকেন। হাজারে প্রতি সপ্তাহে ৫০Ñ৭০ টাকা, কোন কোন ক্ষেত্রে হাজারে মাসিক ৫০ থেকে ১০০ টাকা করে সুদ আদায় করা হয়ে থাকে ব্যক্তি পর্যায়ের সুদি কারবারে। এনজিও ও সমিতি পর্যায়ে ১৫ থেকে ২০% চক্রবৃদ্ধি হারে সুদ আদায় করা হয়ে থাকে। উপজেলার বুধহাটা, বড়দল, আশাশুনি সদর, কুল্যা, কাদাকাটি সহ বিভিন্ন এলাকায় এ কারবার চলে। এব্যাপারে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

Share
[related_post themes="flat" id="297276"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com