,
সংবাদ শিরোনাম :
» « বৃটেনে কনজারভেটিভ পার্টির বিরাট জয়» « সাতক্ষীরায় নানা আয়োজনে পঞ্চদশ কবিতা উৎসব পালিত» « বিশিষ্ট ব্যবসায়ী বশির আহমেদ আর নেই» « সাতক্ষীরা পলাশপোল আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে ১৯৯৪ সালের ব্যাচের শিক্ষার্থীদের পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠিত» « আজ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস» « ট্রাক-পিকআপ দুর্ঘটনায় মাছ ব্যবসায়ী নিহত : আহত ২» « পাটকল শ্রমিকের জানাজা সম্পন্ন, উত্তপ্ত খুলনার শিল্পাঞ্চল» « কোটাবাড়ির একটি ব্রিজের অভাবে হাজার হাজার মানুষের দুর্ভোগ» « মজুরি কমিশন বাস্তবায়নে আগামী ১৫ ডিসেম্বর আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা -শ্রম প্রতিমন্ত্রী» « রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী হত্যার আন্তর্জাতিক আদালতের কাঠগড়ায় মিয়ানমার» « নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল প্রত্যাখ্যান ভারতের ৫ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর

ইনিংস ব্যবধানেই পাকিস্তানের হার

এফএনএস স্পোর্টস: সিরিজ জুড়ে দারুণ পারফর্ম করেছেন অস্ট্রেলিয়ান পেসাররা। ন্যাথান লায়নের কাছেও কিছু পাওয়ার ছিল দলের! পাওনা চুকিয়ে এই অফ স্পিনার, নিলেন ৫ উইকেট। যে মাঠে একসময় ছিলেন মাঠকর্মী, সেই অ্যাডিলেইড ওভালে পূরণ করলেন ৫০ উইকেট। অনুমিতভাবেই পাকিস্তানকে ইনিংস ব্যবধানে হারিয়ে সিরিজে তাদের হোয়াইটওয়াশ করল অস্ট্রেলিয়া। অ্যাডিলেইড টেস্টে পাকিস্তানকে ইনিংস ও ৪৮ রানে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। দুই ম্যাচের সিরিজ জিতে নিয়েছে ২-০তে। সিরিজের আগের টেস্টে অস্ট্রেলিয়া জিতেছিল ইনিংস ও ৫ রানে। ম্যাচের চতুর্থ দিনে সোমবার পাকিস্তান দ্বিতীয় ইনিংসে গুটিয়ে যায় ২৩৯ রানে। প্রথম ইনিংসে তারা করেছিল ৩০২ রান। একমাত্র ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া ইনিংস ঘোষণা করেছিল ৩ উইকেটে ৫৮৯ রানে। এই নিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় টানা ১৪ টেস্ট হারল পাকিস্তান। সবশেষ ১৯৯৫ সালে সিডনিতে মার্ক টেইলরের অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছিল ওয়াসিম আকরামের পাকিস্তান। সফরকারীরা দিন শুরু করেছিল ৩ উইকেটে ৩৯ রান নিয়ে। হার এড়ানোর লড়াইয়ে দলকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন শান মাসুদ ও আসাদ শফিক। দুজনের জুটি পেরিয়ে যায় শতরান। সেই প্রতিরোধ ভাঙেন লায়ন। ফিরিয়ে দেন মাসুদকে। ৬৮ রানে বেরিয়ে এসে খেলতে গিয়ে সহজ ক্যাচ দেন তিনি। পরে ৫৭ রানে শফিককেও ফেরান লায়ন। পাকিস্তান লড়াইয়ের চেষ্টা করে এরপরও। কিন্তু পেরে ওঠেনি লায়নের সঙ্গে। ক্যারিয়ারে ষোড়শবার ৫ উইকেটের স্বাদ পান লায়ন। অ্যাডিলেইডে তার ৫০ উইকেটের বেশি আছে কেবল আর শেন ওয়ার্নের (৫৪টি)। দিনের নায়ক লায়ন হলেও ম্যাচ ও সিরিজের নায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। রেকর্ড গড়া ট্রিপল সেঞ্চুরিতে হয়েছেন ম্যান অব দা ম্যাচ। অ্যাশেজে ১০ ইনিংসে ৯৫ রান করা ব্যাটসম্যান এই সিরিজে ২ ইনিংসেই করলেন ৪৮৯ রান। সিরিজের সেরাতেও তার ছিল না কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী। সংক্ষিপ্ত স্কোর: অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস: ৫৮৯/৩ (ডি.)। পাকিস্তান ১ম ইনিংস: ৩০২। পাকিস্তান ২য় ইনিংস: (ফলো অনের পর) ৮২ ওভারে ২৩৯ (আগের দিন ৩৯/৩) (মাসুদ ৬৮, শফিক ৫৭, ইফতিখার ২৭, রিজওয়ান ৪৫, ইয়াসির ১৩, আফ্রিদি ১, আব্বাস ১, মুসা ৪*; স্টার্ক ১৬-৩-৪৭-১, হেইজেলউড ২৩-৪-৬৩-৩, কামিন্স ১৫-৪-৪৫-০, লায়ন ২৫-৭-৬৯-৫, লাবুশেন ৩-০-৯-০)। ফল: অস্ট্রেলিয়া ইনিংস ও ৪৮ রানে জয়ী। ম্যান অব দা ম্যাচ ও সিরিজ: ডেভিড ওয়ার্নার।

Share
[related_post themes="flat" id="303651"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com