,
সংবাদ শিরোনাম :
» « আন্তর্জাতিক বিচার আদালতের রায় ॥ গণহত্যা বন্ধ ও রোহিঙ্গাদের সুরক্ষার নির্দেশ» « দূর্ণীতিবাজরা যত ক্ষমতাধর ব্যক্তি হোক পার পাবে না ॥ সাতক্ষীরায় মত বিনিময় সভায় দূর্ণীতি দমন চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ» « অপহরণের দুই দিন পর কলেজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার» « সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব দীর্ঘদিন পর সাংবাদিকদের জন্য উণ¥ুক্ত ॥ আনন্দের বন্যায় ফুল ও ভালবসায় সিক্ত নব-নির্বাচিত কমিটি» « সেনাবাহিনীর শীতকালীন প্রশিক্ষণ মহড়া প্রত্যক্ষ ॥ সন্ত্রাস ও দুর্নীতি মুক্ত দেশ গড়ার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত প্রধানমন্ত্রীর» « সাতক্ষীরা রাজস্ব বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রশিক্ষন অনুষ্ঠিত» « খুলনায় বিদেশী পিস্তল সহ কমিউনিষ্ট পার্টির সদস্য আটক» « সীমান্তে বিএসএফ’র নির্যাতনে বাংলাদেশী গরু রাখালের মৃত্যু» « আশাশুনির শালখালী বাজার টু কালিবাড়ী সড়কের বেহাল দশা» « সুন্দরবনে অবৈধ কাঠসহ ১টি নৌকা আটক» « আইন শৃঙ্খলা, চোরাচালান, সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধ কমিটির সভা

নির্ভয়া-ধর্ষকদের ফাঁসিতে ঝুলানোর পর পাওয়া টাকায় হবে জল্লাদের মেয়ের বিয়ে

এফএনএস বিদেশ : ভারতের দিল্লিতে ২০১২ সালের ডিসেম্বরে চলন্ত বাসে ধর্ষণ ও নির্যাতনের পর ২৩ বছর বয়সী মেডিকেলছাত্রী নির্ভয়াকে ছুড়ে ফেলা হয়। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এই মামলার চার আসামির মৃত্যুদন্ড বহাল রেখেছেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। ২২ জানুয়ারি সকাল সাতটায় ফাঁসিতে ঝোলানোর কথা নির্ভয়ার চার দোষীকে। তাদের ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড কার্যকরের দায়িত্ব পেয়েছেন পবন নামের এক জল্লাদ। আর এ কাজের জন্য তিনি পাবেন এক লাখ টাকা। সেই টাকা দিয়ে মেয়ের বিয়ে দিতে চান তিনি। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জি নিউজ এ তথ্য জানিয়েছে। সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, একজনকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড কার্যকর করে পারিশ্রমিক হিসেবে ২৫ হাজার টাকা পান পবন জল্লাদ। তবে তিনি চারজনকে ফাঁসিতে ঝোলানোর কাজটি নিজের সারতে চান। এর ফলে তিনি পাবেন এক লাখ টাকা। ২২ জানুয়ারি নির্ভয়ার চার আসামির মৃত্যুদন্ড কার্যকরের কথা রয়েছে। তবে আইনি জটিলতার কারণে ফাঁসির তারিখ পিছিয়েও যেতে পারে। মৃত্যুদন্ড বহাল রাখার ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই তিহাড় জেল কর্তৃপক্ষ ইতোমধ্যে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। নির্ভয়ার ধর্ষক-খুনিদের ফাঁসি দেয়ার জন্য ৫৭ বছর বয়সী পবন জল্লাদকে বেছে নিয়েছে জেল কর্তৃপক্ষ। এরই মধ্যে পবন জল্লাদের অনুশীলন শুরু হয়েছে। ফাঁসির দড়ি থেকে শুরু করে মঞ্চ-সবই ঠিকঠাক দেখে নিয়েছেন জল্লাদ পবন। ওপর থেকে নির্দেশনা এলেই তার হাতে ঝুলবে এই নির্ভয়ার ধর্ষকরা। চার দোষীকে ফাঁসি দেয়ার সুযোগ পেয়ে খুশি পবন জল্লাদ। তিনি বলেছেন, ‘আমি এখন জেল কর্তৃপক্ষের থেকে পাঁচ হাজার টাকা মাসোহারা পাই। আমার সাত ছেলেমেয়ে। পাঁচ মেয়ে, তিন ছেলে। চার মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। আর এক মেয়ের বিয়ে সামনে। হাতে টাকা নেই। ওই চারজনকে ফাঁসিতে ঝোলালে লাখখানেক টাকা পাব। তা দিয়ে মেয়ের বিয়ে দিতে পারব। তাছাড়া ওই চারজনকে শাস্তি দিতে পারাটা আমার কাছে পরম সৌভাগ্যের।’ তিহাড় জেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ফাঁসির সব প্রস্তুতি সম্পন্ন। ফাঁসির মঞ্চও তৈরি। তাই নির্ভয়া-ধর্ষকদের ফাঁসি কার্যকর এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা।

Share
[related_post themes="flat" id="305392"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com