,
সংবাদ শিরোনাম :
» « নতুন যুগে প্রবেশ করলো সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ॥ কাটা-ছেড়া ছাড়াই অপারেশন সেন্টার উদ্বোধন» « দৈনিক দৃষ্টিপাত’র সাংবাদিক আবু বক্করকে দেখতে সদর হাসপাতালে এমপি রবি» « নতুন যোগদানকৃত শিক্ষকগণের দু’দিন ব্যাপি ওরিয়েন্টেশন» « অসুস্থ সদর উপজেলা আ’লীগ সভাপতিকে দেখতে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এমপি রবি» « সদর হাসপাতালে স্বাস্থ্য সেবার মানোন্নয়নে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে -এমপি রবি» « মাসিক উন্নয়ন সমন্বয়, আইন শৃংখলা, সন্ত্রাস ও নাশকতা প্রতিরোধ কমিটির পৃথক পৃথক সভা অনুষ্ঠিত» « শ্যামনগরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ম্যুরাল এর ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধন» « আখেরী মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো ॥ গুনাকরকাটি খানকাহ্ শরীফের ৯৭তম বার্ষিক ওরস ও ফাতেহা শরীফ» « প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা» « সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম রানার পিতার জানাযা অনুষ্ঠিত ॥ প্রেসক্লাবের শোক» « দেশে দেশে গোয়েন্দা ॥ তারকা গোয়েন্দা ফ্রেডরিক জোবার্ট

সড়কে সড়কে মৃত্যু মিছিল ॥ আহতের চিৎকার নিরাপদ সড়ক কতদুর?

দৃষ্টিপাত রিপোর্ট ॥ থেমে নেই সড়ক দূর্ঘটনা নিরাপদ সড়ক চাই শ্লোগানটি বর্তমান সময়ে বাস্তবতা বিবর্জিত অন্ত:সার শূন্য। আমাদের দেশের সড়ক ও মহাসড়কগুলোতে এমন কোন দিন নেই যে দিনে সড়ক দূর্ঘটনা নামক মানবঘাতক রক্ত ঝরাচ্ছে না। মানব সন্তান লাশে পরিনত হচ্ছে না। ঘর হতে সুস্থ শরীরে ঘরের বাইরে বের হওয়া মানুষটি নিরাপদে এবং সুস্থ শরীরে ঘরে ফিরতে পারছে এমনটির নিশ্চয়তা নেই। সড়ক দূর্ঘটনা মহামারী আকার ধারন করেছে। আমাদের দেশের সড়ক এবং মহাসড়ক গুলো উন্নত, আধুনিক কিন্তু কেন সড়ক দূর্ঘটনা, বাংলাদেশের অভ্যন্তরের সড়ক এবং মহাসড়কগুলো কেবল উন্নত বা আধুনিক তা নয় আমাদের দেশের সড়ক ও মহাসড়কগুলো বিশ্বমানের। সড়কে সড়কে মানব ঘাতক নামের সড়ক দূর্ঘটনা, বোবা কান্না, আহতদের আত্মচিৎকার, নিহতদের পরিবার বর্গের আহাজারী, সবই আধুনিক সভ্যতা আর উন্নত যুগজামানার প্রতি বৃদ্ধাঙ্গলী। দূর্ঘটনা হঠাৎই ঘটে আর দূর্ঘটনায় কারো হাতে নেই এমন কথা প্রায় শোনা যায়। কিন্তু বাস্তবতা হলো সড়ক দূর্ঘটনার ক্ষেত্রে অবশ্যই কোন না কোন কারন বিদ্যমান সড়ক যানবাহন, নিয়ন্ত্রনহীন গতিতে চালানো, ট্রাফিক আইন মান্য না করা বহুবিধ কারন বিদ্যমান। বিধায় দূর্ঘটনার ক্ষেত্রে কোন না কোন কারন বিদ্যমান। যে পরিবারের কোন সদস্য সড়ক দূর্ঘটনায় আহত, পঙ্গুত্ববরন করে বা নিহত হয় সেই পরিবারই অনুভব করে সড়ক দূর্ঘটনা কতটুকু মর্মান্তিক, বেদনাদায়ক এবং হৃদয়বিদারক। অতি সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন এলাকায় সড়ক দূর্ঘটনায় ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। গত দুই তিন দিনে দেশের বিভিন্ন এলাকায় সড়ক দূর্ঘটনায় অন্তত দশজনের অধিক নিহত হয়েছে। শনিবার যশোর শহরে সড়ক দূর্ঘটনায় একই পরিবারের তিনজনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা দেশ ব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। হাজার হাজার মানুষের হৃদয়ভাঙ্গা বেদনার মাধ্যমে যশোরের তিন জনের দাফন হয়েছে। সড়কে সড়কে মৃত্যুর মিছিল আর আহতদের আত্মচিৎকার রোধ করতে হবে। নিরাপদ সড়ক ব্যবস্থা এবং নিরাপদ সড়ক এর বিষয়টি বারবার আলোচিত এবং অপরিহার্য কিন্তু এটাই বাস্তবতা যে সড়ক এবং মহাসড়কগুলো নিরাপদ নয়, প্রতিমুহুর্তে দূর্ঘটনাই সড়ক ও মহাসড়ক গুলোকে নিরাপত্তাহীনতার ক্ষেত্রে পরিনত করছে। সড়কে সড়কে মৃত্যুর মিছিল রোধ করতে হবে। সড়ক দূর্ঘটনা বর্তমান সময়ে এমন পর্যায়ে পৌছেছে যে যাত্রী পথচারি, শ্রমিক কেউ নিরাপদ নয়, সড়ক দূর্ঘটনার বিষয়ে সড়ক পরিবহন ব্যবস্থার সাথে জড়িত, যাত্রী সহ পথচারিদের সাথে কথা বলে জানাগেছে সড়ক দূর্ঘটনায় বিশেষ ভূমিকা রেখে চলেছে নিয়ন্ত্রনহীন যান চালনা, অতিরিক্ত গতিতে যানবাহন চালনা দূর্ঘটনার অন্যতম কারন। দ্রুত গতি সম্পন্ন যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রন করা দুরুহ আর তাই দূর্ঘটনা সহজেই ঘটে থাকে। দূর্ঘটনা রোধে নিয়ন্ত্রনহীন গতিতে নয় স্বাভাবিক গতিতে যানবাহন চালনা করতে হবে। এক শ্রেণীর যাত্রীরা এবং পথচারিরা ট্রাফিক আইন সম্পর্কে সচেতন নয় এবং সতর্ক না বিধায় অজ্ঞতার কারনে দূর্ঘটনার মুখোমুখি হয়। সাতক্ষীরার বাস্তবতায় সড়ক দূর্ঘটনা সাম্প্রতিক সময়ে বৃদ্ধি পেয়েছে আর এর জন্য জেলার সড়ক গুলোর দূরবস্থায় দায়ি। সাতক্ষীরা কালিগঞ্জ জেলার অন্যতম ব্যস্ততম সড়ক উল্লেখিত সড়কটির বিভিন্ন অংশে খানা খোন্দক পূর্ণ আর খানা খোন্দক পূর্ণ সড়কের কারনেই দূর্ঘটনা ঘটে চলেছে। জেলার অন্যান্য সড়কগুলোর অবস্থাও করুন, জীর্ণতায় ভরা। সড়ক দূর্ঘটনা রোধে নিয়ন্ত্রন এর মধ্যে যান চলাচল করানো, উন্নত সড়ক ব্যবস্থা ট্রাফিক আইন মেনে চলা, ফিটনেস যানবাহনই কাম্য। সড়কে সড়কে মানবঘাতক নয় দূর্ঘটনা নয়, নিরাপদ সড়ক কেবল আলোচনা নয় বাস্তবতায় পূর্ণতাপাক।

Share
[related_post themes="flat" id="306262"]

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ॥ জিএম নুর ইসলাম, কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, যশোর রোড, সাতক্ষীরা, ফোন ও ফ্যাক্স ॥ ০৪৭১-৬৩০৮০, ০৪৭১-৬৩১১৮
নিউজ ডেস্ক ॥ ০৪৭১-৬৪৩৯১, বিজ্ঞাপন ॥ ০১৫৫৮৫৫২৮৫০ ই-মেইল ॥ driste4391@yahoo.com