1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ১২:১৩ পূর্বাহ্ন

আইলার দশ বছর পরেও ॥ প্রত্যাশিত অবকাঠামো উন্নতি হয়নি পদ্মপুকুরে

দৈনিক দৃষ্টিপাত ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: শুক্রবার, ২৪ মে, ২০১৯
  • ০ বার পড়া হয়েছে

পদ¥পুকুর (শ্যামনগর) প্রতিনিধি ঃ আজ ২৫ শে মে ১০ তম আইলা দিবস। ২০০৯ সালের আজকের এই দিনে প্রলংকারী ঘূর্ণিঝড় আইলায় শ্যামনগর উপজেলার পদ্মপুকুর ইউনিয়নে ৬-৭ টি পয়েন্টে বেঁড়ি-বাঁধ ভাঙ্গিয়া সমস্ত ইউনিয়নটি প্লাবিত করিয়া ফেলে। ইউনিয়নের রাস্তা-ঘাট, বাড়ি-ঘর, পশু-পাখি, মাছের ঘের, সবকিছু তছনছ করিয়া ফেলে। মানুষ তখন তাদের নিজের বাড়িতে থাকতে না পেরে সীমিত কয়েকটি সাইক্লোন স্লেটার ও বেঁড়ি-বাঁধের উপর অবস্থান নিয়েছিলেন। পরবর্তীতে বাংলাদেশ সরকার ও বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধিদের তৎপরতায় মানুষের খাওয়ার ব্যবস্থা করলেও এলাকার রাস্তাঘাট মেরামত ও সংস্কারের দৃশ্যমান কোনো উন্নতি পরিলক্ষিত হয় নাই। ২০১১ সাল নাগাত অত্র ইউনিয়ন পানি মুক্ত হলেও ওয়াপদার বেঁড়ি-বাঁধের কোন উন্নায়ন হয় নাই। সাবেক আমলের বেঁড়ি-বাঁধ টি স্থানীয় জনগনের সহযোগিতার মাধ্যমে কোন প্রকার জোঁড়া-তালি দিয়ে চলছে। বর্তমানে কামালকাটি, খুঁটিকাটা, চাউল খোলা, পাতাখালি, বন্যাতলা, ওয়াপদার গুলোর খুবই খারাপ অবস্থা। আইলার চেয়ে অনেক নি¤œ মানের যে কোন প্রাকৃতিক দূর্যোগ হলে অত্র ইউনিয়নটি আবার প্লাবিত হইবে। ইউনিয়নটির একমাত্র মূল চলাচলের রাস্তাটি পাখিমারা হইতে চৌদ্দরশি পর্যন্ত বেহাল দশা। বর্ষা মৌসুমের ৩-৪ মাস এই রাস্তা দিয়ে কোন মানুষ চলাচল করিতে পারে না। ফলে মানুষকে খুবই মানবতার জীবনযাপন করিতে হয়। তাছাড়া পর্যাপ্ত সাইক্লোন স্লেটার না থাকায় যে কোন প্রাকৃতিক দূর্যোগের সময় ভীত-সন্ত্রাস্ত অবস্থায় জীবনযাপন করিতে হয়। সে কারণে অত্র ইউনিয়নের কামালকাটি, ঝাঁপা, চন্ডিপুর, বাইনতলা, পদ্মপুকুর, বন্যাতলা গ্রামগুলোতে আশু সাইক্লোন স্লেটারের বিশেষ প্রয়োজন। এলাকার মানুষের একান্ত দাবি ইউনিয়ন টির চারপাশে নদী বেষ্ঠিত থাকায় ভেঁড়ি-বাঁধ গুলোর ভঙ্গুর অবস্থা বিরাজ করছে। ইউনিয়ন বাসীর একান্ত দাবি ওয়াপদার ভেঁড়ি-বাঁধ গুলো বর্তমান ডিজাইন অনুযায়ী যাহাতে দ্রুত নির্মান করা হয় এবং ইউনিয়নের একমাত্র চলাচলের রাস্তাটি অর্থ্যাৎ পাখিমার হইতে চৌদ্দরশি পর্যন্ত রাস্তাটি দ্রুত নির্মানের জন্য বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পানি সম্পদ মন্ত্রী, যোগাযোগ মন্ত্রী বরাবর জোর দাবি জানিয়েছেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41