1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
রবিবার, ১২ জুলাই ২০২০, ০৩:১২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ ॥ ভাল নেই সাতক্ষীরার পাঁচ শতাধিক আইনজীবী ॥ আর্থিক সংকটে পরিবার পরিজন ॥ স্বাস্থ্যবিধি মেনে আদালতের কার্যক্রম চালুর দাবী সাতক্ষীরা মেডিকেলে ডাক্তারদের সাথে মতবিনিময় করলেন জনপ্রশাসন সচিব মিনহা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ চিকিৎসক পুলিশ কর্মকর্তা সহ আরো ১৫ জন করোনায় আক্রান্ত বাতাসে ভেসে বেড়ায় করোনাভাইরাস, নতুন নির্দেশিকা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিজেন্টে তৈরি হতো যেভাবে ভুয়া রিপোর্ট ভয়ঙ্কর দম্পতি ডা. সাবরিনা সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারনে করোনার মধ্যেও উপ-নির্বাচনের সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল কে.এম নুরুল হুদা কোভিড নিয়ে খুলনাতে যেন বাণিজ্য না হয় -মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব তালায় গৃহবধুর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মেঘনায় দুই লঞ্চের সংঘর্ষে মা-ছেলের মৃত্যু

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • Update Time : সোমবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০২০

এফএনএস: মধ্যরাতে মেঘনা নদীতে দুই লঞ্চের সংঘর্ষে এক নারী ও তার সাত বছরের ছেলের মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছেন অন্তত ১০ যাত্রী। গত রোববার রাত পৌনে ১টার দিকে বরিশাল ও চাঁদপুরের সীমান্তবর্তী মেঘনা নদীর মাঝের চর এলাকায় ঢাকাগামী কীর্তনখোলা-১০ ও পিরোজপুরের হুলারহাটগামী ফারহান-৯ লঞ্চের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার গারুরিয়া ইউনিয়নের রুবেল খান আব্বাসের স্ত্রী মাহমুদা বেগম (২৫) ও তার ছেলে মমিন খান (৭)। তারা কীর্তনখোলা-১০ লঞ্চের যাত্রী ছিলেন। বরিশাল নৌবন্দরে বিআইডব্লিউটিএ এর কর্মকর্তা আজমল হুদা মিঠু বলেন, ফারহান-৯ লঞ্চের সামনের দিক কীর্তনখোলা-১০ লঞ্চের মাঝামাঝি অংশে সজোরে ধাক্কা দেয়। তাতে কীর্তনখোলা লঞ্চের ডান দিকের অনেকটা অংশ দুমড়ে মুচড়ে যায়। দুর্ঘটনার সময় লঞ্চের নিচতলার ডেকে স্ত্রী-সন্তানকে নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন রুবেল খান। সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই মারা যান মাহমুদা ও মমিন। রুবেলসহ ১০ যাত্রী এ ঘটনায় আহত হন। তাদের মধ্যে গুরুতর কয়েকজনকে নৌ পুলিশের সহায়তায় চাঁদপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকেরগঞ্জের গারুরিয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা মো. সাইফুজ্জামান জানান, রুবেল খান পেশায় একজন গাড়ি চালক। পরিবার নিয়ে তিনি ঢাকাতেই থাকেন। শীতের ছুটিতে কয়েকদিন আগে গ্রামের বাড়িতে এসছিলেন। ছুটি শেষে ঢাকায় ফেরার পথে তারা দুর্ঘটনায় পড়েন। নিহত মা-ছেলের লাশ নিয়ে কীর্তনখোলা লঞ্চটি গতকাল সোমবার সকাল ৯টার দিকে ঢাকা সদরঘাটে পৌঁছায়। ঢাকা সদরঘাট নৌ থানার ওসি রেজাউল করিম ভূঁইয়া যাত্রীদের বরাত দিয়ে বলেন, বরিশাল থেকে যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা কীর্তনখোলা-১০ চাঁদপুরের কাছাকাছি এসে ঘন কুয়াশার মধ্যে চরে আটকে যায়। ঢাকা থেকে পিরোজপুরের হুলারহাটগামী ফারহান-৯ চরে আটকে থাকা কীর্তনখোলা লঞ্চের মাঝামাঝি জায়গায় গিয়ে সজোরে ধাক্কা খায়। মাস্টার-সুকানি আটক: এদিকে এ ঘটনায় ফারহান-৯ লঞ্চের মাস্টার আফতাব হোসেন ও সুকানি আবদুল হামিদকে আটক করেছে পিরোজপুর থানা পুলিশ। গতকাল সোমবার বিকেল পিরোজপুর সদর থানার ওসি নুরুল ইসলাম বাদল জানান, ফারফান-৯ লঞ্চের মাস্টার (দ্বিতীয় শ্রেণি মর্যাদার) আফতাব হোসেন ও সুকানি আবদুল হামিদকে পিরোজপুর সদর এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) ও পুলিশ সুপারের নির্দেশে তাদের আটক করে থানা পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়েছে। এদিকে বরিশাল নদীবন্দর কর্মকর্তা আজমল হুদা সরকার মিঠু বলেন, অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল অধ্যাদেশ ১৯৭৬ এর ৮১ ক ধারা অনুযায়ী ফারহান-৯ লঞ্চটি স্থানীয় থানা পুলিশের হেফাজতে রাখা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ ছাড়া লঞ্চটির চলাচল বন্ধ থাকবে। তদন্ত কমিটি: বরিশাল-ঢাকা রুটের মেঘনা নদীতে দুই লঞ্চের সংঘর্ষের ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিআইডব্লিউটিএ। বিআইডব্লিউটিএ সংস্থার অতিরিক্ত পরিচালক (বন্দর) সাইফুল ইসলামকে আহ্বায়ক করে গতকাল সোমবার সকালে ৪ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। বরিশাল নদী বন্দর কর্মকর্তা আজমল হুদা মিঠু সরকার এ কথা জানান। বরিশাল নদী বন্দর কর্মকর্তা আজমল হুদা মিঠু সরকার বলেন, তদন্ত কমিটিকে ৭ কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। এছাড়াও তদন্ত কমিটিকে দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানের পাশাপাশি দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশের কথা বলা হয়েছে। পরবর্তীতে এ ধরনের দুর্ঘটনা এড়াতে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সুপারিশ করতে বলা হয়েছে।

শেয়ার

আরও খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41