1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
শনিবার, ০৪ জুলাই ২০২০, ০৫:৩৭ অপরাহ্ন

বনভোজন, পিকনিক আর শিক্ষা সফরের ভীড়ে গ্রাম বাংলার চড়ুইভাতি হারিয়ে যাচ্ছে

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • Update Time : শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২০

ফরিদুল কবির কালিগঞ্জ থেকে ॥ ছেলেবেলায় চড়ুইভাতি খেলার অভিজ্ঞতা আমাদের সবার জানা আছে। ছুটির দিনে কয়েকজন বন্ধুবান্ধবী একত্র হয়ে প্রত্যেকের বাড়ি থেকে চাল-ডাল, ডিম, তরকারি, মাছ, মাংস এনে হাত পুড়িয়ে রান্না করে আনন্দ করে খাওয়াকে বলে চড়ুইভাতি। সেদিন বাড়ি থেকে নিয়ে আসতে হতো থালা-বাসন, পাতিল-খুন্তি সবই। এরপর খোলা জায়গায় অথবা গাছের নিচে বসে নিজেদের তৈরি চুলায় রান্না করে মজা করে খাওয়া। সেই একটা সময় ছিল গ্রাম বাংলার চড়ুইভাতি। এটি নতুন প্রজন্মের কাছে অচেনা হলেও কালের কড়ালচক্রে সেই চড়ুইভাতি থেকে বনভোজন বা পিকনিক এর প্রচলন এসেছে। কিন্তুু এখন আর তা দেখা যায় না। চড়ুইভাতির সেসব দিনের কথা ভুলতে বসেছি শুক্রবার সকালে প্রয়োজনিয় কাজে বসন্তপুর এলাকায় গেলে হঠাৎ দেখা যায়, শিশুদের চড়ুইভাতির দৃশ্য। ছুটির দিনে এলাকায় শিশু বয়সের তাজিম, সামিয়া, ফারিহা, রিমা, ইতি, মিম, ফাহামি, মিহি, সাদিয়া, জেসমিন, আনিছাসহ কয়েকজন একত্রে চড়ুইভাতি খেলছে। তাদের পাশে দাঁড়িয়ে আছে কারও মা, দাদীসহ তাদের নিকটতমরা। এমনকি শিশুদের যার যার বাড়ি থেকে চাল-ডাল, ডিম, মাংস, হাঁড়ি-পাতিল নিয়ে মজা করে খিচুড়ি রান্না করছে। তখন তাদের সাথে এক মা রান্নার কাজে সহযোগীতা করছে। তখন মনে পড়ল পুরান সেদিনের কথা। ছেলেবেলায় সারাক্ষণ দুষ্টুমি, ছোটাছুটি আর দুরন্তপনা, রোদে ঘুরে বেড়ানো, পানিতে সাঁতার কাটা, গাছে চড়া, চড়ুইভাতি আরো কত কিদুরন্ত শৈশব ও বাল্যকালে এসব কে না করেছে! তবে গ্রামীণ পরিবেশের সেই ছোট্টবেলার চড়ুইভাতি আজ প্রায় বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। আধুনিকতার ছাঁয়ায় চড়ুইভাতি হারিয়ে যাচ্ছে বনভোজন, পিকনিক, শিক্ষা সফর আর আনন্দ ভ্রমনের ভীরে। তাই আমাদের নতুন প্রজন্মের কাছে চড়ুইভাতির আসল নামকরণ ও গ্রামীন ঐতিহ্য তুলে ধরা উচিত। এতে বাঙালীর ঐতিহ্য রক্ষা ও ইতিহাসের পাতায় স্মরণীয় হয়ে থাকবে হাজার বছর ধরে।

শেয়ার

আরও খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41