1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ০৫:৪০ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শ্যামনগরে শিক্ষিকা জেসমিন নাহার এর অকাল মৃত্যু জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী ॥ অনির্দিষ্টকালের জন্য মানুষের আয়-রোজগারের পথ বন্ধ রাখা যাবে না হকারদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী বিতরণ আশাশুনিতে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণ করলের জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের মাঝে ঈদ উপসার বিতরণ সোমবার ঈদুল ফিতর ঢাকা থেকে পালিয়ে আসা করোনা পজিটিভ আশাশুনির নিলুফা এখন সম্পূর্ণ সুস্থ কাশিমাড়ী খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে দুই উপজেলার ১২ গ্রাম প্লাবিত, কাজের কোনো অগ্রগতি নেই! সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের গণবিজ্ঞপ্তি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পক্ষে ঈদ উপহার বিতরণ

নতুন ৩৫জনসহ করোনা আক্রান্ত ১২৩, মৃত্যু ১২জনের: আইইডিসিআর

দৈনিক দৃষ্টিপাত ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: সোমবার, ৬ এপ্রিল, ২০২০
  • ০ বার পড়া হয়েছে


এফএনএস: দেশে ৩৫ জন নতুন করোনা রোগী সনাক্ত হয়েছেন। গতকাল সোমবার পর্যন্ত আইইডিসিআরসহ দেশের বিভিন্ন ল্যাবরেটরিতে করোনা আক্রান্ত সন্দেহভাজন ৪৬৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৩৫ জন শনাক্ত হয়। তাদের মধ্যে পুরুষ ৩০ জন ও নারী ৫ জন। নতুন যাদের শরীরে এ ভাইরাস ধরা পড়েছে তাদের ১২ জনই নারায়ণগঞ্জের। এ নিয়ে দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২৩ জনে। এছাড়া ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে আরও ৩ জনের মৃত্যু হয়। আর মৃতের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়াল ১২ জনে। করোনা আক্রান্তদের মধ্যে নতুন করে কেউ সুস্থ হয়নি। গতকাল সোমবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত অনলাইন প্রেসব্রিফিংয়ে আইইডিসিআর পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা এসব তথ্য জানান। যদিও এরআগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন ভিন্ন তথ্য। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৯ জন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন। ৪ জন মারা গেছেন বলেও জানিয়েছিলেন তিনি। অবশ্য স্বাস্থ্য মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, নামের বিভ্রাটের কারণে স্বাস্থ্যমন্ত্রী তখন মৃতের সংখ্যা ৪ জন জানিয়েছিলেন। তাছাড়া আক্রান্তের সংখ্যাও তখন পর্য়ন্ত ২৯ জনই ছিল। তথ্য নিয়ে বিভ্রান্তির কোনো সুযোগ নেই বলেও তিনি মন্তব্য করেন। আইইডিসিআরের পরিচালক জানান, বয়সভিত্তিক হিসেবে নতুন আক্রান্ত ৩৫ জনের মধ্যে সর্বোচ্চ ১১ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছর। এরপর ২১ থেকে ৩০বছর বয়সী ৬ জন। এলাকাভিত্তিক বিশ্লেষণে দেশে শনাক্তকৃত মোট ১২৩ জন করোনা রোগীর মধ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক ৬৪ জন রাজধানী ঢাকার। স্বাস্থ্য মহাপরিচালক অ্ধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ জানান, এ পর্যন্ত দেশে ৬৬ হাজার ৫১১ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন ও ২৯৯ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইসহ সর্বমোট ৬৬ হাজার ৮১০ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৭০৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন ও ৩০ জনকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টানসহ মোট ৭৩৯ জনকে কোয়ারেন্টাইনে আনা হয়। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩ জনকে আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে। এ পর্যন্ত মোট ৪৪৩ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। বর্তমানে ১০৭ জন আইসোলেশনে রয়েছেন। গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সন্ধান পাওয়া যায়। এরপর থেকে প্রায় নিয়মিত কয়েকজন করে নতুন আক্রান্ত রোগীর খবর দিচ্ছিল আইইডিসিআর। এরমধ্যে গত রোববার একবারে ১৮ জন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হওয়ার কথা জানানো হয়। আর তার পরদিন অর্থাৎ গতকাল সোমবার আবার নতুন করে ৩৫ জন আক্রান্ত হয়েছে বলে জানানো হলো। বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর পর একদিনে এটিই সর্বোচ্চ আক্রান্তের খবর। করোনা ভাইরাসে বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত রাজধানী ঢাকায়। এখন পর্যন্ত ঢাকায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪ জন। এর পরই নারায়ণগঞ্জ, সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন ২৩ জন। এ ছাড়া ভাইরাসটি দেশের ১৫ জেলায় ছড়িয়েছে। ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ জানান, গত ২৪ ঘণ্টা নতুন করে ২৩ জনকে আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু ২৪ ঘণ্টায় কাউকে আইসোলেশন থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়নি। এখন পর্যন্ত মোট ৪৪৩ জনকে আইসোলেশন করা হয়েছিলো। তাদের মধ্যে ৩৩৬ জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে ১০৭ জন আইসোলেশনে রয়েছে। এ ছাড়া সারাদেশে ৪৬৮ জনের নমুনা সংগ্রহ এবং পরীক্ষা করা হয়েছে। ব্রিফিংয়ের একপর্যায়ে প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি বলেন, দেশের মধ্যে এখন পর্যন্ত ঢাকা মহানগরীতে ৬৪ জন, নারায়ণগঞ্জে ২৩ জন, মাদারীপুরে ১১ জন, চট্টগ্রাম দুইজন, গাইবান্ধায় পাঁচজন এবং চুয়াডাঙ্গা, কুমিল্লা ও কক্সবাজারে একজন করে আক্রান্ত রয়েছেন। এ ছাড়া জামালপুর তিনজন, গাজীপুর, মৌলভীবাজার, নরসিংদী, রংপুর, শরীয়তপুর ও সিলেটে একজন করে আক্রান্ত রয়েছেন। দেশের মোট ১৫ জেলায় এ কেস রয়েছে। প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে নানা পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে; যার মূলে রয়েছে মানুষে মানুষে সামাজিক দূরত্ত বজায় রাখা। সে বিষয়টি মাথায় রেখে গৃহীত পদক্ষেপগুলোর মধ্যে সর্বশেষ মুসল্লিদের ঘরে নামাজ পড়ার আহ্বান জানিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়। করোনা ভাইরাস ঠেকাতে মুসলিস সংখ্যাগরিষ্ঠ বহু দেশই এর আগে এ পদক্ষেপ নিয়েছে। বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এখন ১২ লাখ ৭৩ হাজার ৯৯০ জন। যুক্তরাষ্ট্রের পরপরই সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে স্পেনে; ১ লাখ ৩১ হাজার ৬৪৬ জন। এ ছাড়া ইতালিতে আক্রান্তের সংখ্যা এখন ১ লাখ ২৮ হাজার ৯৪৮। এছাড়া বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা এখন ৬৯ হাজার ৪৪৪ জন। সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ইতালিতে; ১৫ হাজার ৮৮৭। এরপর ১২ হাজার ৬৪১ মৃত্যু নিয়ে ইউরোপের আরেক দেশ স্পেনের অবস্থান দ্বিতীয়। তবে আড়াই লাখের বেশি রোগী ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41