1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ০৬:৫৩ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শ্যামনগরে শিক্ষিকা জেসমিন নাহার এর অকাল মৃত্যু জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী ॥ অনির্দিষ্টকালের জন্য মানুষের আয়-রোজগারের পথ বন্ধ রাখা যাবে না হকারদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী বিতরণ আশাশুনিতে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণ করলের জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের মাঝে ঈদ উপসার বিতরণ সোমবার ঈদুল ফিতর ঢাকা থেকে পালিয়ে আসা করোনা পজিটিভ আশাশুনির নিলুফা এখন সম্পূর্ণ সুস্থ কাশিমাড়ী খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে দুই উপজেলার ১২ গ্রাম প্লাবিত, কাজের কোনো অগ্রগতি নেই! সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের গণবিজ্ঞপ্তি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পক্ষে ঈদ উপহার বিতরণ

কেমন আছেন প্রবীণ শিল্পীরা?

দৈনিক দৃষ্টিপাত ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২০
  • ২ বার পড়া হয়েছে

এফএনএস বিনোদন: শট রেডি করার তাড়া নেই, আলোর ঝলকানি নেই, অ্যাকশন-কাট বলাতেও ব্যস্ত নন পরিচালক। শুটিং হাউসগুলোতে বাসা বেঁধেছে নীরবতা। নাটক থেকে চলচ্চিত্র সব কিছুর শুটিং বন্ধ। বছর জুড়ে ব্যস্ত থাকা তারকাদের জীবন এখন চার দেয়ালে বন্দি। শুধু করোনাভাইরাসের তান্ডবে সব আজ স্থবির। বাংলাদেশেও এর প্রকোপ দিন দিন বাড়ছে। ভয়াবহ এই করোনাকালে অন্যান্যের মতো ঘরে বন্দি রেখেছেন প্রবীণ অভিনয়শিল্পীরাও। এদিকে বয়স্ক ও অসুস্থ ব্যক্তির এ রোগে ঝুঁকি বেশি বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। এই দুর্দিনে প্রবীণ অভিনয়শিল্পীরা কেমন আছেন তা নিয়ে সাজানো হয়েছে এই প্রতিবেদন। গুণী অভিনয়শিল্পী দিলারা জামান পরিবারের সঙ্গে ঢাকার বাসায় রয়েছেন। শুটিং বন্ধ থাকার কারণে দীর্ঘ দিন ধরে বাড়িতে রয়েছে তিনি। ৭৬ বছর বয়েসি দিলারা জামান  বলেন, ‘বন্দি জীবনের এক মাস হয়ে গেল। এই পরিস্থিতিতে কী হবে কে জানে!’ ১৯৭১ সালে দিলারা জামানের বয়স ছিল ২৮ বছর। মহান মুক্তিযুদ্ধের প্রত্যক্ষ স্বাক্ষী তিনি। সেই দুঃসময়ের স্মৃতিচারণ করে এ অভিনেত্রী বলেন, ‘একাত্তরে যুদ্ধের সময় গ্রামে চলে গিয়েছিলাম। তখন বন্দি জীবন কাটিয়েছিলাম। কারণ বয়স কম ছিল, এজন্য বাড়ির সবাই লুকিয়ে রাখতো। গোলা ঘরের পেছনে সারা দিন পড়ে থাকতাম আর রাত হলে ঘরে ঘুমাতে আসতাম। এখন নিজের ঘরেই বন্দি। কোথাও বের হতে পারছি না। মানুষ দেখি না, আকাশ দেখি না। এই দুঃসময় কেটে যাবে। যুদ্ধের শেষে যেমন জয়ী হয়েছিলাম, তেমনি আবারো জয়ী হবো। শুধু তো আমার দেশে না, সারা বিশ্বে এ যুদ্ধ চলছে।’ করোনা দুর্যোগে অনেক অমানবিক ঘটনা দেশে ঘটছে। আর সেসব খবর দেখে বিষাদে ভরে উঠছে এই শিল্পীর মন। তার ভাষায়Ñ‘আমরা মানুষ হিসেবে কত যে অমানবিক ও নিষ্ঠুর, মনুষ্যতের যত গুণাবলী তার সবই মনে হয় হারিয়ে ফেলেছি। পত্রিকা-টেলিভিশনে একেকটা ঘটনা দেখে এত কষ্ট লাগে!’ তবে এই দুঃসময়ে অনেকে ফোন করে খবর নিচ্ছেন তাঁর। এতে আনন্দিত তিনি। কিন্তু এ পরিস্থিতিতে কিছু ভয়ও কাজ করছে তাঁর মনে। তিনি বলেন, ‘এই সময়টা বৃদ্ধদের জন্য ভয়ের। এজন্য সবাই খবর নিচ্ছে। আমি একজনকে বললাম, এত মায়া করো, ভালোবাসো কিন্তু মারা গেলে তো আসবাও না, চেহারাটাও দেখবা না। এটাই সবচেয়ে বড় কষ্টের।’ করোনার এই যুদ্ধে সামনে থেকে লড়াই করছেন চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মী, সংবাদকর্মীসহ অনেকে। তাদের সবাইকে সাবধানে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন এই শিল্পী। বরেণ্য অভিনয়শিল্পী আবুল হায়াত। তিনিও ঢাকার বাসায় পরিবারের সঙ্গে অবস্থান করছেন। ৭৫ বছর বয়েসি এই শিল্পী  বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, ভালো আছি। গত একমাসের বেশি সময় ধরে বাড়ি রয়েছি। দুয়ারের বাইরেও যাচ্ছি না।’ তবে কন্যা বিপাশা হায়াতকে নিয়ে কিছুটা চিন্তিত। কথোপকথনের সময় তেমনি ইঙ্গিত পাওয়া গেল। কারণ এই মুহূর্তে বিপাশা হায়াত যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে রয়েছেন। এ বিষয়ে আবুল হায়াত বলেন, ‘মাশাল্লাহ ভালো আছে। প্রতিদিনই বিপাশার সঙ্গে কথা হচ্ছে। সব কিছু যেন ঠিকঠাক থাকে, সবাই দোয়া করবেন।’ উদ্ভূত পরিস্থিতিতে মানুষের এখন ঘরে থাকা জরুরি। কিন্তু এ বিষয়ে দেশের মানুষের উদাসীনতায় বিরক্ত আবুল হায়াত। তিনি বলেন, ‘এখন আমাদের একটাই কাজ ঘরে থাকা। এ ছাড়া আমাদের আর কিছু করারও নেই। ঘরে থাকাই বেশি দরকার। কিন্তু এটাই আমরা বুঝতে পারছি না। বাঙালি জাতিটা এরকমই, নিজেদের বিপদ নিজেরা বুঝতে পারে না। যখন বুঝতে পারে তখন আর সময় থাকে না। আমার একটাই কথাÑআমরা থাকব ঘরে করোনা থাকবে দূরে।’ অন্যদিকে বরেণ্য নাট্য ব্যক্তিত্ব মামুনুর রশীদ কয়েক মাস আগে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নিয়ে বাসায় ফিরেছেন। এখন ঢাকার বাসায় গৃহবিন্দ দিন কাটছে তাঁর। ৭২ বছর বয়েসি এই অভিনেতা-নির্মাতা  বলেন, ‘আমি গৃহবন্দি। পৃথিবীর কোটি কোটি লোক গৃহবন্দি। আমরা একটি খাঁচার মধ্যে বন্দি হয়ে আছি। খুবই দুঃসময়! এই অবস্থায় আমি আকাক্সক্ষা করছিÑখুব দ্রুত যেন এই ব্যাধি আমাদের জীবন থেকে দূর হয়।’

 

 

 

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41