1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ০৮:৪৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শ্যামনগরে শিক্ষিকা জেসমিন নাহার এর অকাল মৃত্যু জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী ॥ অনির্দিষ্টকালের জন্য মানুষের আয়-রোজগারের পথ বন্ধ রাখা যাবে না হকারদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী বিতরণ আশাশুনিতে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণ করলের জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের মাঝে ঈদ উপসার বিতরণ সোমবার ঈদুল ফিতর ঢাকা থেকে পালিয়ে আসা করোনা পজিটিভ আশাশুনির নিলুফা এখন সম্পূর্ণ সুস্থ কাশিমাড়ী খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে দুই উপজেলার ১২ গ্রাম প্লাবিত, কাজের কোনো অগ্রগতি নেই! সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের গণবিজ্ঞপ্তি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পক্ষে ঈদ উপহার বিতরণ

“আম্পান” লন্ডভন্ড করে দিয়ে গেল কালিগঞ্জের ঘরবাড়ি, গাছপালাসহ নদীর বেড়িবাঁধ

দৈনিক দৃষ্টিপাত ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ২১ মে, ২০২০
  • ১৯ বার পড়া হয়েছে

আশেক মেহেদী / মাসুদ পারভেজ, কালিগঞ্জ থেকে ॥ সীমান্তবর্তী উপজেলা কালিগঞ্জে তাণ্ডব চালিয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’। ঘূর্ণিঝড়ের তান্ডবে গোটা কালিগঞ্জ ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে। উপজেলার চারটি পয়েন্টে বিপজনক অবস্থায় উপকূলীয় বেড়ীবাঁধ। যে কোন সময় প্লাবিত হতে পারে গ্রামের পর গ্রাম । কাঁচা ঘরবাড়ী হয়েছে বিধ্বস্ত। বিদ্যুতের খুঁটি ও গাছপালা উপড়ে পড়েছে। এতে পুরো উপজেলা ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে। রাস্তাঘাট চলাচলের অনউপযোগী হয়ে পড়েছে। উপজেলার রাস্তাঘাটগুলো সচল করতে কালিগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি সিফাত উদ্দিনের নেতৃত্বে কাজ শুরু করেছে উপজেলা প্রশাসন সহ এলাকার সাধারণ জনগণ।সবজি, ধান ও আমসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। কালিগঞ্জ উপজেলার ভাড়াশিমলা ইউনিয়নের খারহাট সংলগ্ন বেড়িবাঁধ, সুইলপুর বেড়িবাঁধ, রতনপুরের সাতহালিয়া বেড়িবাঁধ, কৃষ্ণনগরে কালিকাপুর বেড়িবাঁধ অত্যন্ত ঝুঁকির মুখে । আম্ফান ব্যাপকতা থেমে যাওয়ার পরে সেহেরীর পর থেকে ভাঙ্গা বেড়িবাঁধ সংস্কারের কাজ শুরু করেছে স্ব স্ব এলাকার জনপ্রতিনিধিদের নেতৃত্ব স্থানীয় জনগণ। তাৎখনিক ঘটনাস্থান পরিদর্শন করেন কালিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক রাসেল। সরেজমিনে বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার পানিয়া আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, গোবিন্দকাটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পিরোজপুর পথকলী প্রাইমারি বিদ্যালয় সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সম্পূর্ণরূপে বিধ্বস্ত হয়েছে, যার সংখ্যা সরকারিভাবে নিরূপনের চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এই যখন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিস্থিতি তখন অপরদিকে সর্বস্বান্ত হয়েছেন আম ব্যবসায়ীরা। তারা ইতিপূর্বে পঞ্চাশ ভাগ গোবিন্দভোগ আম গাছ থেকে সংগ্রহ করতে পারলেও বাকি পঞ্চাশ ভাগ গোবিন্দভোগ আম একশ ভাগ হিমসাগর, ল্যাংড়া, মল্লিকা, আম্রপালীসহ বিভিন্ন আমের ব্যাপক খতিসাধীত হয়েছে। এলাকার জনসাধারণ ধারণা বুলবুলের যে পরিমাণ গাছপালা ধ্বংস হয়েছিল তার চেয়ে এবার আম্ফানে ধ্বংসযজ্ঞ আরো বেশি। এদিকে পল্লী বিদ্যুৎ সম্পূর্ণরূপে বিধ্বস্ত হয়েছে। প্রতি কিলোমিটারে অন্ততপক্ষে তিন জায়গায় মেন লাইনে তার কেটেছে। এমত অবস্থায় কত দিনের ভিতর যে তারা বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করতে পারবে এ বিষয়ে স্থানীয় জনগণের কোনো ধারণা নেই।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41