1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
বুধবার, ২৭ মে ২০২০, ০৭:৩৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শ্যামনগরে শিক্ষিকা জেসমিন নাহার এর অকাল মৃত্যু জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী ॥ অনির্দিষ্টকালের জন্য মানুষের আয়-রোজগারের পথ বন্ধ রাখা যাবে না হকারদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী বিতরণ আশাশুনিতে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণ করলের জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের মাঝে ঈদ উপসার বিতরণ সোমবার ঈদুল ফিতর ঢাকা থেকে পালিয়ে আসা করোনা পজিটিভ আশাশুনির নিলুফা এখন সম্পূর্ণ সুস্থ কাশিমাড়ী খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে দুই উপজেলার ১২ গ্রাম প্লাবিত, কাজের কোনো অগ্রগতি নেই! সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের গণবিজ্ঞপ্তি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের পক্ষে ঈদ উপহার বিতরণ

ঘূর্ণিঝড় “আমফান” এর তাণ্ডবে শ্যামনগর উপজেলা লন্ডভন্ড

দৈনিক দৃষ্টিপাত ডেস্ক ::
  • আপডেট টাইম :: বৃহস্পতিবার, ২১ মে, ২০২০
  • ১৫ বার পড়া হয়েছে

এস এম জাকির হোসেন শ্যামনগর থেকেঃ ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় “আমফান” এর তাণ্ডবে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার উপকূলীয় অঞ্চল লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। ঘূর্ণিঝড় আমফানের প্রভাবে কাঁচা ঘরবাড়ি, মৎস্য ঘের সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। করোনা দূর্যোগের মধ্যে এ নতুন দূর্যোগে দিশেহারা উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষ। গত বুধবার দুপুর থেকে বৃষ্টিপাতের মধ্য দিয়ে ঝড়টি শুরু হয়ে সন্ধ্যা নাগাদ ১৪৮ কিলোমিটার বেগে উপকূলে আঘাত হানে। এর আগে বাতাসের গতিবেগ ছিল ১২০ কিলোমিটার। টানা ৬ ঘণ্টা একই গতিতে দাপট দেখিয়ে সব কিছু ভেঙে তছনছ করে দিয়েছে ঘূর্ণিঝড় আমফান। ঘূর্ণিঝড় আমফানের তান্ডবে গোটা উপজেলা এখন ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। সড়কের উপরে অসংখ্য গাছ উপরে পড়েছে, বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়েছে, ছিড়ে গেছে সংযোগ লাইন, মানুষের ঘরবাড়ি, মৎস্য ঘের, ফসলি জমি, মুরগি/পোল্ট্রি শিল্পের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে ব্যাপক। উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নের ১৫ টি পয়েন্টে বেড়িবাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে, ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কয়েক লক্ষ মানুষ। উপজেলার দাতিনাখালী এলাকায় এক মুরগির খামারে পানি ঢুকে ১৫০০ রেডি মুরগি মারা গেছে। উপজেলার প্রধান প্রধান সড়কগুলো থেকে ফায়ার সার্ভিসের মাধ্যমে গাছপালা সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। গাছপালা সরাতে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে থানা পুলিশ। এ বিষয়ে দৈনিক দৃষ্টিপাত পত্রিকা থেকে ঘূর্ণিঝড় আমফানের তথ্য নেওয়ার জন্য শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ ন ম আবুজার গিফারির মোবাইল ০১৭৮৫-৭৫৯০৯৫ এই নাম্বারে বার বার কল করা সত্বেও ফোনটি রিসিভ হয়নি, পরবর্তীতে ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। ঘূর্ণিঝড় আমফানের ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম আতাউল হক দোলন জানান, উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়নে ১৫ টি পয়েন্টে বেড়িবাঁধ ভেঙে পানি এলাকায় প্রবেশ করায় ঘরবাড়ি, গাছপালা, ফসলি জমি, মৎস্য ঘের, কাঁকড়া পয়েন্ট সহ এক লক্ষ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের উদ্ধার কাজে নিয়োজিত আছে প্রশাসন, পুলিশ, বিজিবি, কোস্টগার্ড, নেভি, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ স্বেচ্ছাসেবক বাহিনী। বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রিতদের মাঝে ৫০ টন চাউল ও আড়াই লক্ষ টাকার খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হয়েছে। সামগ্রিক ক্ষয়ক্ষতি পরিমাণ এখনো নিরূপণ করা সম্ভব হয়নি কাজ চলছে। এ বিষয়ে সুন্দরবন সাতক্ষীরা বুড়িগোয়ালিনী রেঞ্জ কর্মকর্তা আবু হাসান জানান, ঘূর্ণিঝড় আমফানের প্রভাবে আপাতত সুন্দরবনের তেমন কোন ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করা যায় নাই। ঈদের পরে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরূপণ করা যাবে। পশুপাখি, জীবজন্তুর কোন প্রাণ হানির ঘটনা ঘটেনি। যে সমস্ত মৌয়াল পাস নিয়ে সুন্দরবনে মধু আহরন করতে গিয়েছিল তারা বিপদ সংকেত এর পরে স্থানীয় লোকালয়ে উঠে আসে, মৌয়ালদের নিখোঁজের সংবাদ পাওয়া যায়নি।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41