1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:৫৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শ্যামনগর ও আশাশুনী প্রতিনিধিদের সাথে মত বিনিময় -জিএম নুর ইসলাম \ দৃষ্টিপাতের প্রতিনিধিদের কে দৃষ্টিপাতের মতই হতে হবে আশাশুনির নদী ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শনকালে ডাঃ রুহুল হক এমপি \ ঝুঁকিপূর্ণ বেড়ীবাঁধ নির্মাণে দুই হাজার কোটি টাকা বরাদ্ধ আসছে আহমদ শফীর জানাজায় লাখো মানুষের ঢল, দাফন সম্পন্ন দৈনিক দৃষ্টিপাতের সহ সম্পাদক ওমর ফারুকের দাদী শাশুড়ীর ইন্তেকাল পানিতে ডুবে মৃগী রোগীর মৃত্যু ৫ দিন বন্ধ থাকার পর ভোমরা স্থল বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি শুরু রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের সেক্রেটারী সৈয়দ ফিরোজ কামাল শুভ্র নির্বাহী সদস্য মীর তানজীর আহমেদ সাতক্ষীরা সুলতানপুর বড় বাজার কাঁচা মাল ব্যবসায়ী সমিতির ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন \ সভাপতি বাদশা, সম্পাদক বাবু নির্বাচিত জেলায় করোনা পজেটিভ ১ জন \ মোট সনাক্ত ১১৯১ দেবহাটা প্রেসক্লাবের নির্বাচনী তফশীল ঘোষনা

প্রলয়ংকারী ঘুর্নিঝড় জ্বলোচ্ছ্বাস আম্পানে বিধ্বস্ত লোকালয় \ বাঁধ রক্ষায় স্বেচ্ছাশ্রমে আর কতদিন চলবে ?

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • Update Time : রবিবার, ২৪ মে, ২০২০

মাসুম প্রতাপনগর (আশাশুনি) থেকে : মহা প্রলয়নকারী ঘুর্নিঝড় জ্বলোচ্ছ্বাস আম্পানে আগ্রাসনে বিধ্বস্ত লোকালয়ে বহমান শ্রীপুর-কুড়িকাহুনিয়ার কপোতাক্ষ ও খোলপেটুয়া নদীর মোহনার স্রোত ধারা প্রতাপনগর অঞ্চল তথা হরিষখালি বন্যতলা, সুভদ্রাকাটি, চাকলার বিস্তির্ণ এলাকায় তীব্র জোয়ার ভাটার খেলা চলছে। এ দূর্যোগের পরিত্রান থেকে কিভাবে রক্ষা পাবে এখানকার মানুষ ? বাঁধ রক্ষায় হাজারো স্বেচ্ছাশ্রমে আর কতদিন চলবে ? নিরাপদ পাউবোর বেড়ীবাঁধের দেখা মিলবে কি কখনো ? প্লাবিত এলাকার মানুষের মানবেতর জীবনযাত্রার পরিসমাপ্তি ঘটবে কি ? কে নেবে এতো কিছুর দায়িত্ব। কি করোনা ভাইরাসের আতংক, কি সিয়াম সাধনার তাৎপর্য, কি ঈদ আনন্দ। কি মানুষের জীবন যাপনে মাথা গোঁজার ঠাঁই। মহা প্রলয়ংকারী ঘুর্নিঝড় আম্পানের জ্বলোচ্ছ্বাসের আঘাতে সবই যেন অম্লান হয়ে গেছে। সব কিছু তুচ্ছ করে দিতে হয়েছে ভুক্তভোগীদের। কেউ সিয়াম সাধনাকে বুকে ধারণ করে, আবার কেউ রোজা ভঙ্গ করে জীবন বাজি রেখে কি সকাল কি সন্ধ্যা কি রাতের আঁধার যাদের বসবাস এই বেড়ীবাঁধে। স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে স্ব-স্ব স্থানীয় ভুক্তভোগী এলাকাবাসীরা কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে বেড়ীবাঁধের ভিতর দিয়ে রিং বাঁধ দিয়ে বাঁধরক্ষায় কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। উল্লেখ্য যে ২০ মে বুধবার সন্ধ্যা রাতে মহা প্রলংনকারী ঘুর্নিঝড় জ্বলোচ্ছ্বাস আম্পানের আগ্রাসনে দক্ষিণ বঙ্গের প্রতাপনগর অঞ্চলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। পানিতে তলিয়ে গেছে মাইলের পর মাইল জনপদ। গৃহ হারা হয়েছে শতশত পরিবার। আর একের পর একর ফসলি জমি পরিনত হয়েছে কুল কিনারা হিন নদীতে। এ যেন সাগর নদী আর জনপদ মিলে মিশে একাকার। যে দিকে চোখ যায় শুধু পানি আর পানি। এর মাঝে তান্ডবের চিহ্ন হিসাবে ডুবো ডুবো অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে টিন ও খড়ের ঘরের কিছু অংশ বিশেষ। সব বাঁধই ভেঙ্গে প্লাবিত বিস্তীর্ণ অঞ্চল। ভেসে গেছে শতশত মাছের ঘের। ডুবে গেছে কৃষকের সাধের সবুজ ফসল ভরা খেত খামার। পঁচা দুর্গন্ধে পরিবেশ জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। এ যেন দেখার কেউ নেই। এহেন পরিস্থিতিতে সচেতন ভুক্তভোগীরা বলেন আমরা ত্রেণ চাই না। আমাদের বসবাসের স্বার্থে নদী ভাঙ্গনের কবল থেকে রক্ষা পেতে বেড়ীবাঁধ নির্মাণে কংক্রিট ব্লকের বিকল্প নাই। তাই সেনাবাহিনীর মাধ্যমে টেঁকসই বেড়ীবাঁধ নির্মাণের বিকল্প নাই।

শেয়ার

আরও খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41