1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০, ০১:০৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ভাতশালা স্লুইজগেট বিপদজনক ॥ ভেঙ্গে পড়ার উপক্রম ॥ পানি উন্নয়ন বোর্ডের দায়িত্বহীনতার বহি:প্রকাশ ॥ খরস্রোত ইছামতী ও সাপমারা একাকার ॥ তলিয়ে যেতে পারে বিস্তীর্ন এলাকা স্বাস্থ্যবিধি মেনে নলতা পাক রওজা শরীফের খাদেম সাহেবের দাফন সম্পন্ন সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারের সংবাদ সম্মেলন ॥ জলদস্যুতায় সংশ্লিষ্ট থাকার অভিযোগে ৪ জন গ্রেফতার সাতক্ষীরায় এসএমই ঋণ বিতরণ মনিটরিং কমিটির সভা অনুষ্ঠিত অর্ধশত দিন পার হলেও বানভাসি প্লাবিত উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষ সাহারা খাতুন আর নেই সাতক্ষীরায় দুই চিকিৎসক পুলিশ কর্মকর্তা সহ আরো ২৪ জনের করোনা পজেটিভ সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে স্বাস্থ্য সেবা সামগ্রী বিতরণ করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান বাবু সাতক্ষীরা কমিউনিটি ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ এটিএম বুথ উদ্বোধন করলেন পুলিশ সুপার শ্যামনগরে করোনা স্বেচ্ছাসেবীদের নিরাপত্তা সামগ্রী প্রদান করলেন এমপি জগলুল হায়দার

চামড়া শিল্পের দুরবস্থা ॥ নষ্ট হচ্ছে বাজার ॥ পেশা বদল করছে ব্যবসায়ীরা

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৩০ জুন, ২০২০

দৃষ্টিপাত রিপোর্ট ॥ দেশের বৈদেশিক মুদ্রা উপার্জন এবং অভ্যন্তরীন বাজার ব্যবস্থায় অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে চামড়া শিল্প কাঙ্খিত ভূমিকা পালন করে আসছে। বর্তমান সময়ে চামড়া শিল্প অস্থির এবং চরম দুঃসময় অতিক্রম করছে। চামড়ার মূল্য হ্রাস, পুজির অভাব, ট্যানারী মালিকদের পাওনা পরিশোধ না করা, বৈশ্বায়িক সমস্যা, কাচা চামড়া ক্রয় পরবর্তি বাজার জাত করনের খরচ এবং বিক্রয় মূল্য সর্বনিম্ন সব মিলে চামড়া বাজারে ঢস নেমেছে। গত বছরের কুরবানী ঈদ পরবর্তি চামড়া বিক্রয়ের টাকা অনেক ট্যানারী মালিকরা খুচরা ও পাইকারী ব্যবসায়ীদের পরিশোধ করেনি। একাধিক কাঁচা চামড়া ব্যবসায়ীর সাথে কথা বলে জানা গেছে বর্তমান সময়ে কাচা চামড়ার মূল্য এক হাজার এতে এগার/বারশত। উক্ত দরে চামড়া ক্রয় করে তা পাকা করনে লবন ও শ্রমিক মুজুরী দিয়ে অন্তত পাকা চামড়া প্রতিপিচ অন্তত আঠার হতে দুই হাজার টাকায় বিক্রি হওয়ার কথা কিন্তু বাস্তবতা হলো পাকা চামড়ার মূল্যই নির্ধারন হচ্ছে চারশত হতে পাঁচশত টাকা। আর এ কারনে চামড়া শিল্পের প্রথম পর্যায় মাংস ব্যবসায়ীরা তাদের চামড়া বিক্রি করতে পারছে না। বর্তমান সময়ে কাচা চামড়া এক প্রকার অবিক্রিত। চামড়া শিল্পের এই দুরবস্থার কারন হেতু স্থানীয় অর্থনীতিতে যেমন বিরুপ প্রভাব সৃষ্টি করেছে অনুরুপ ভাবে জাতীয় অর্থনীতিতেও ছন্দ পতন ঘটাচ্ছে। স্থানীয় ক্ষুদ্র, পাইকারী ও প্রান্তীক চামড়া ব্যবসায়ীরা বর্তমানে পেশা বদল করতে শুরু করেছে। দেশের দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলে বৃহত্তম চামড়া বাজার যশোরের রাজার হাট বর্তমানে শুন্যতা বিরাজ করছে। জাকজমক, উদ্বাসে ভরা রাজার হাট চামড়া বাজার প্রতি শনি ও মঙ্গলবার জমজমাট হতো দূরদূরান্ত হতে চামড়া ব্যবসায়ীরা রাজার হাটে চামড়া বিকিকিনি করত। কিন্তু বৃহত্তম চামড়া বাজার রাজার হাটের জৌলূস নেই। ক্ষুদ্র ও প্রান্তীক চামড়া ব্যবসায়ীরা ক্রয় মুল্য এবং বিক্রয় মূল্যের অসম ব্যবধান এর শিকার ও লোকসানে তাই আর রাজারহাটে চামড়া বাজারের যৌবন নেই। দেশের চামড়া শিল্প দৃশ্যতঃ কুরবানীর গরু ও ছাগলের চামড়ার উপর নির্ভরশীল, কিন্তু গত বছরের কুরবানীর চামড়া মূল্য অধিকাংশ ট্যানারি মালিকরা প্রান্তীক ও আড়ৎদারদের পরিশোধ করেনি। ব্যবসায়ীরা জানায় ইতিপূর্বে ট্যানারী মালিকরা কুরবানীর চামড়া ক্রয়ের জন্য অগ্রীম টাকা দাদন দিত কিন্তু বর্তমানের চিত্র ভিন্ন দাদন দেওয়া তো দুরের কথা পাওনা টাকাই দিচ্ছে না। পরিসংখ্যানে দেখা গেছে প্রতিবছর কুরবানীর সময় অন্তত পঞ্চাশ লাখ পিছ গরু ও পঁচিশ লাখ পিছ ছাগলের চামড়া ক্রয় বিক্রয় হয়, গত বছর দেশের বিভিন্ন এলাকায় চামড়া ব্যবসায়ীরা চামড়ার কাঙ্খিত মূল্য না পেয়ে মাটিতে পুতে এবং রাস্তায় ফেলে রেখে প্রতিবাদ জানায়। চামড়া শিল্প দেশের বৈদেশিক মুদ্রা উপার্জনে কাঙ্খিত ভূমিকা পালন করে আসছিল। কিন্তু পরিস্থিতি আর বাস্তবতায় চামড়া শিল্প যেন বোঝা হতে চলেছে। দিনে দিনে বাজার হারাচ্ছে চামড়ার মূল্যহীনতার এই প্রতিযোগিতা অব্যাহত থাকলে চামড়া চোরাচালান শক্তি যে মাঠে নামবে না এমনটি বলা অসম্ভব। সাতক্ষীরার বাস্তবতায় পারুলিয়া গরুহাট, আবাদের হাট, কুশলিয়াহাটে চামড়া ক্রয় বিক্রয় ভালই ছিল কিন্তু এখানেও যশোরের বাজার হাটের ছোয়া লেগেছে। চামড়া শিল্পের এই মহাদুর্যোগকে রুখতে হবে। আর এ জন্য এই শিল্পে ভূর্তকি প্রদানের পাশাপাশি, ট্যানারী মালিকদের নিকট পাওনা পরিশোধ, কাঁচা চামড়া পাকা পরবর্তি বিক্রয়ের মধ্যে লাভ্যাংশ রাখতে হবে। জেলায় প্রতিদিনই উল্লেখযোগ্য সংখ্যক গরু এবং ছাগল জবাই হয়। মাংস ব্যবসায়ীরাও এ ক্ষেত্রে চামড়া প্রকৃত মূল্য পাচ্ছে না। নগন্য মূল্যে বলাযায় নাম মাত্র মূল্যে চামড়া বিক্রি করছে তা তাদের ব্যবসায়িক ভাবে ক্ষতি করছে। সম্ভাবনাময় চামড়া শিল্পে রক্ষা করতে হবে আর এ জন্য সরকারি উদ্যোগের বিকল্প নেই।

শেয়ার

আরও খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41