1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
সোমবার, ১০ অগাস্ট ২০২০, ০৯:৫৫ অপরাহ্ন

প্রতাপনগর কাঁদছে : গ্রাম ছাড়ছে অনেকে ॥ ত্রান নয় তারা চান স্থায়ী টেকসই বাধ : জনগনই শেষ শক্তি

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • Update Time : সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০

মীর আবুবকর ॥ প্রতাপনগর কাঁদছে, প্রতাপনগর এর কান্না হাহাকার আর্তনাদ আর আহাজারী সাতক্ষীরার আকাশ বাতাসকে স্পর্শ করলেও থেমে নেই কান্না, সর্বনাশা আম্ফান এর ছোবলে, তান্ডবে তছনছ প্রতাপনগরের বিস্তীর্ণ জনপদ, নদী বেষ্ঠিত বারবার নদী ভাঙ্গনের নির্মম নিষ্ঠুর শিকার প্রতাপনগরের প্রায় চল্লিশ হাজার জনগোষ্ঠী বারবার নিঃস, রিক্ত, ছিন্নভিন্ন হয়ে মানবেতর জীবনের সঙ্গী হয়েছে আবারও সেই মুহুর্ত, তবে অতীতের যে কোন সময় অপেক্ষা বর্তমান সময়ে প্রতাপনগরের বেদনা আর কান্না সর্বনাশার শেষ প্রান্ত ছুয়েছে। জোয়ার ভাটা বইছে ইউনিয়নটির বিভিন্ন অংশে প্রতিটি জোয়ার ভাটা বইছে ইউনিয়নটির বিভিন্ন অংশে প্রতিটি জোয়ার ভাটা মানব সন্তানদের রক্তক্ষরন করে ছাড়ছে। প্রতাপনগর, হিজলা, কোলা, কুড়িকাহনিয়া চাকলা, সুভান্তকাটি, নাকনা, রুয়ারবিল, সনাতনকাঠি, শিরাস, কল্যানপুর প্রতিনিয়ত পানিতে ভাসছে। চিরচেনা গ্রাম, বসতবাড়ী, ফসলীজমি, চিংড়ী ঘের, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সবই পানিতে ঘরের মধ্যে গবাদী পশু আর সাপের সাথে বসবাস প্রিয় জন্মস্থান, জন্মভূমি, যেন অচেনা বাপদাদার বসতভিটা ছেড়ে অনেকে শহরে আত্মীয়ের বাড়ীতে অথবা অজানা গন্তব্যে চলেগেছে। চারিদিকে পানি আর কতদিন পানিতে বসবাস। কাচা ঘরবাড়ি ঢসে গেছে, পাকা, আধাপাকা ঘরবাড়ী কাঁপছে। পানি আর স্রোতে যে কোন সময় পানিতে ডুবে থাকা ঘরবাড়ি ভেঙ্গে পড়তে পারে। বসতবাড়ী পানিতে অন্যদিকে কাজ নেই। সরকারি সহায়তা পেলেও বর্তমানে অসহনীয় দূর্বিসহ দুর্দিনে, বেসরকারি ত্রানের খোজ নেই। কখনও কখনও দুই একজনকে ত্রান দিয়ে ছবি তুলে নিয়ে যাচ্ছে। কখনও কখনও আইডি কার্ড চাইলেও ত্রান ভাগ্যে জোটেনি। স্থানীয় চেয়ারম্যান জাকির হোসেন জানান বাঁধ নির্মানের কাজ এগিয়ে চলেছে সরকারি চালের উপর নির্ভর করে সে^চ্ছাসেবীদের সহায়তা করা হচ্ছে। ভেড়িবাধের জন্য বরাদ্ধ থাকলেও সরকারি চালই ভরসা, দীর্ঘদিনের জোয়ার ভাটা আর পানি বন্দী হতে গতকাল হতে হরিষখালী এলাকার জনগন কিছুটা স্বস্তি পেয়েছে। গতকাল হরিষখালী বাঁধ নির্মানের প্রাথমিক ধাপ অতিক্রম হয়েছে জোয়ার ভাটা বন্ধ হয়েছে, প্রাথমিক ভাবে চাপান দিলেও রাতের জোয়ারে প্রবল স্রোতে পুর্বের ন্যায় লোকালয়ে আবারও বিস্তীর্ন পানি আর পানি। সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী-২ সুধাংশ কুমার সরকার সহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উর্ধতন কর্মকর্তারা বাঁধ সংস্কার কাজ পরিদর্শন করেন এবং হরিষখালীতে দীর্ঘসময় অবস্থান করেন। নির্বাহী প্রকৌশলী দৃষ্টিপাতকে জানান বাঁধ নির্মানে বরাদ্ধ হয়েছে এবং উক্ত বরাদ্ধের ভিত্তিতে কাজ চলছে। নদী ভাঙ্গন, বারবার ভেড়ীবাধ ভাঙ্গনের সাথে যুদ্ধরত প্রতাপনগরের জনসাধারন ত্রান চায় না। প্রতাপনগরের বানভাসি লবনাক্ত পানির আগ্রাসী ছোবলে ক্ষত বিক্ষত মানব সন্তানরা জীবন জীবিকার জন্য পাত পাততে চায় না, তারা দয়া, করুনা আর হাত পাতার পক্ষে নয়, তারা জীবনের নিরাপত্তা চায়, নদী ভাঙ্গন আর বাঁধ ভাঙ্গনের সর্বনাশা অভিশাপ হতে মুক্তি চায় আর এ জন্য প্রয়োজন মজবুত, টেকসই আর স্থায়ী বাঁধ, যখনই কোন জ্বলোচ্ছাস ঘুর্ণিঝড়, ত্রান বা প্রাকৃতিক দূর্যোগ হানা দিয়েছে তখনই প্রতাপনগর নিঃস, রিক্ত, সর্বহারা হয়েছে আর প্রতাপনগরে প্রায় চল্লিশ হাজার মানুষ তাদের শেষ শক্তি, সম্বল, সাহস, মনোবল, শ্রমের মাধ্যমে বেঁচে থাকার যুদ্ধে নেমেছে এবারও তার ব্যতিক্রম নয় প্রতাপনগর বাসিই শেষ ভরসা আর তাই ভাঙ্গনে ভাঙ্গনে, ভাঙ্গন রোধে স্বেচ্ছাশ্রমে নেমেছে হাজারো মানুষ। পানি উন্নয়ন বোর্ডের বরাদ্ধ, কাজ যদি দুর্ণিতী মুক্ত হয়। ঠিকাদার আর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা যদি গতানুগতিক ধারা হতে বের হয়ে প্রতাপনগরকে রক্ষা করতে চায় তাহলে নিশ্চয়ই ভাঙ্গন রোধ হবে মজবুত, টেকসই এবং স্থায়ী সরকারী অর্থ যেন ভাঙ্গন রোধে, বাঁধনির্মানে, সংস্কারে যথাযথ ব্যবহার হয় দুর্ণিতী যেন টেকসই বাঁধ নির্মানে অন্তরায় না হয় সে বিষয়টি বিশেষ ভাবে তত্ত্বাবধান করতে হবে।

শেয়ার

আরও খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41