1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:২১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সাতক্ষীরায় সকাল বিকাল মাছ বাজারের উদ্বোধন করলেন এমপি রবি করোনায় যেন দুর্ভিক্ষের প্রভাব না পড়ে সে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল -প্রধানমন্ত্রী চিরনিন্দ্রায় শায়িত হলেন নূরজাহান আহমেদ কাঁদলেন এলাকাবাসি টানা বর্ষনে শিবপুর ও কুশখালী ইউনিয়ন বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত সাতক্ষীরায় আট দলীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ১-০ গোলে কামালনগর ক্লাব জয়ী গড়েরকান্দায় মসজিদের উন্নয়নে অনুদানের চেক প্রদান করলেন প্যানেল চেয়ারম্যান সৈয়দ আমিনুর রহমান বাবু সাতক্ষীরায় পূর্ব শত্র“তার জের ধরে গভীর রাতে ট্রাক্টারে আগুন ॥ থানায় মামলা শিশুদের পুষ্টি স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ইউপি চেয়ারম্যানদের অবহিত করণ সভা অনুষ্ঠিত শ্যামনগরে জলবায়ু সুবিচারের দাবিতে অবরোধ কর্মসূচি পালন শ্যামনগরে রেফারেল পাথওয়ে প্যাকেজ প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

আজ শোকাবহ পনের আগষ্ট : জাতীয় শোক দিবস

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • Update Time : শুক্রবার, ১৪ আগস্ট, ২০২০

আজ শোকাবহ পনের আগষ্ট, উনিশশত পঁচাত্তর সালের এই দিনে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদ্বয়ের মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী। ঘাতকরা এই দিনে জাতির জনক এর সহধর্মিনী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব সহ পরিবারের অপরাপর সদস্যদের হত্যা করে। স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের অভ্যুদ্বয়ের কান্ডারী জাতির পিতাকে হত্যা মাধ্যমে ঘাতকরা আবারও দেশবাসিকে বিপর্যয়ের মুখে ফেলতে চাইছিল, মুক্তিযুদ্ধ আর মুক্তিযোদ্ধার প্রতিশোধ নিতে চাইছিল। যে নেতা আজীবন অধিকার হারা মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ের নেতৃত্ব দিয়েছেন, পাকিস্তানী শাসকদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে, আন্দোলন করেছে। পাকিস্তানী সামরিক জান্তা কারাগারে আটকে রেখে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা ষড়যন্ত্র করলেও জাতির পিতা কোন অবস্থাতেই নির্যাতিত, নিপেড়িত, অধিকার বঞ্চিত মানুষের পক্ষে লড়াই করেছেন। হানাদার বাহিনীর রক্তচক্ষু তিনি বারবার প্রত্যাখান করেছেন অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে জাতির জনক বছরের পর বছর কারাগারে অন্তরীন ছিলেন তিনি ছিলেন আপোসহীন, আর তাই তো আজকের স্বাধীনসার্বভৌম বাংলাদেশ। জাতির জনক কে যারা হত্যা করে তারা কি এদেশের সন্তান হতে পারে? বঙ্গবন্ধুকে হত্যা মানেই স্বাধীনতাকে হত্যা, একদল বিপদগামী সেনা সদস্যরা সেদিন বঙ্গবন্ধু ও পরিবারের সদস্যদের নির্মম এবং নিষ্ঠুর ভাবে হত্যার পর বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার যেন না হয় সে জন্য কালো আইনও প্রনয়ন করে। জাতির জনকের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার জাতির জনক হত্যা মামলার আসামীদের বিচারকার্য পরিচালনা শুরু করে। জাতি কিছুটা হলেও কলঙ্ক মুক্ত হয়েছে। তবে সকল আসামী বিচারের মুখোমুখি হইনি। বিদেশে পলাতক খুনিদের দেশে ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা চলছে। আজ জাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রীয় ভাবে বহুবিধ কর্মসূচি পালন করা হবে। দেশের সর্বত্র জাতির জনক ও পরিবারের সদস্যদের রুহের মাগফিরাত কামনা সহ বহুবিধ কর্মসূচি পালন করা হবে।

শেয়ার

আরও খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41