1. admin@dainikdrishtipat.com : admin :
  2. driste4391@yahoo.com : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ১১:২৫ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
জেলা প্রশাসনের সুধী সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ ॥ সাতক্ষীরায় জাদুঘর স্থাপনে ইতোমধ্যে জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে মাধ্যমিকেও হচ্ছে না বার্ষিক পরীক্ষা কলারোয়ায় ফোর মার্ডারের ব্যবহৃত চাপাতি ও তোয়ালে উদ্ধার ॥ নিহতের ছোট ভাই রাহানুলের স্বীকারোক্তি ফলোআপ ঃ শোভনালীর চন্দ্র শেখর হত্যা মামলার আসামী মোবাশে^র আটক মুক্তিযোদ্ধা আবু নাসিম ময়নার বাড়ি ঘুরে এলেন সাংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী সখিপুরে লক্ষ টাকার ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন দেবহাটা উপজেলা পরিষদের কাঙ্খিত ছাদ বাগানের অগ্রযাত্রা নলতা-তারালী সড়কে ইঞ্জিনভ্যান ও মটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত-১ ॥ আহত-২ বসন্তপুর প্রাইমারি স্কুলের নতুন ভবনের উদ্বোধন করলেন এমপি লুৎফুল্লাহ সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর খুলনা শিল্পকলা একাডেমি পরিদর্শন

দাকোপে পানখালী নদী ভাঙ্গনে বেড়িবাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • Update Time : শুক্রবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০

শচীন্দ্র নাথ মন্ডল, দাকোপ (খুলনা) থেকে ॥ ভয়াবহ নদী ভাঙ্গনে খুলনার দাকোপে পানখালী ফেরিঘাটের পূর্ব পাশে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন সেল্টার সংলগ্ন প্রায় ৫০ থেকে ৬০ ফুট ওয়াপদা বেড়িবাঁধ মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। যে কোন মুহুর্তে বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে ঝপঝপিয়া নদীগর্ভে বিলিন হয়ে কয়েক হাজার হেক্টর জমির রোপা আমনসহ ঘরবাড়ি প্লাবিত হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এছাড়াও মৌখালী, বটবুনিয়া, কামনিবাসিয়াসহ কয়েকটি পয়েন্টে প্রায় একই অবস্থা বিরাজ করছে। সরেজমিনে পানখালী এলাকার ফাল্গুনী হালদার, রাজেন রায়সহ একাধিক ব্যক্তি জানায়, সম্প্রতি ভাঙ্গন কবলিত ঝুঁকিপূর্ণ স্থানটির ওয়াপদা বেড়িবাঁধের অর্ধেকাংশ ইতোমধ্যে ঝপঝপিয়া নদীগর্ভে বিলিন হয়েছে। জোয়ারের তোড়ে বাকি অংশে ১৭ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার রাতে বড় বড় ফাঁটল দেখা দিয়েছে। যা দিয়ে চুয়ে চুয়ে পানি ভিতোরে প্রবেশ করছে। যে কোন মুহুর্তে ওই অংশ ভেঙ্গে বিলিন হয়ে পানখালী, চালনা পৌরসভার ১ ও ২ নম্বর ওয়ার্ডসহ ব্যাপক এলাকা প্লাবিত হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন। ভাঙ্গন কবলিত ঝুঁকিপূর্ণ স্থানটি দ্রুত মেরামত করা প্রয়োজন বলে তারা মনে করেন। আর তা না হলে কয়েক হাজার হেক্টর জমির রোপা আমনসহ অসংখ্য ঘরবাড়ি তলিয়ে মানুষের অ-পূরনিয় ক্ষতি হতে পারে। একে তো করোনার কারণে মানুষের অর্থসংকট লেগে আছে আর এক মাত্র আমন ফসল হারালে এলাকার লোক দিশেহারা হয়ে পড়বে বলে তারা জানান। স্থানীয় ইউপি সদস্য জ্যোতি শংকর রায় বলেন নদী ভাঙ্গনের বিষয় পানি উন্নয়ন বোর্ডকে বার বার জানিয়েও কোন প্রতিকার পাচ্ছেন না। প্রত্যেক দিন এলাকার প্রায় ১৫০ থেকে ২০০ জন লোক সেচ্ছাশ্রমে ভাঙ্গন কবলিত স্থানে কাজ করছেন। এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল ওয়াদুদ জানান, ভাঙ্গন কবলিত ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে এলাকার লোকজন সেচ্ছাশ্রমে কাজ করছেন। তিনি দ্রুত বেড়িবাঁধ মেরামতের জন্যে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পলাশ কুমার ব্যানার্জী বলেন ভাঙ্গন কবলিত স্থানে আমার লোক গিয়েছিল। স্থানীয় লোকজনের সাথে আমার কথা হয়েছে তারা কিছু জিও ব্যাগ চেয়েছেন। আমি অফিসের নিয়োম মেনে কিছু ব্যাগ দিবো।

শেয়ার

আরও খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41