1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : Dailik Drishtipat : Dailik Drishtipat
বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারী ২০২১, ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শপথ নিলেন বাইডেন বিচার বিভাগের কর্মচারিদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন করলেন মানবতার জজ শেখ মফিজুর রহমান পদোন্নতি পেলেন সাতক্ষীরার চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট বিলাস মন্ডল ও ইয়াসমিন নাহার সাতক্ষীরায় ক্ষুদ্র ও কুটিরশিল্পে ধ্বস \ মুখ থুবড়ে পড়েছে রপ্তানি যোগ্য টালি শিল্প করোনায় অর্থনৈতিক মন্দা এড়াতে পেরেছে বাংলাদেশ -প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনী আপিল ট্রাইবুনালের বিচারক বিজ্ঞ সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে বাংলাদেশের শুভ সূচনা সখিপুরে শীতবস্ত্র বিতরন করলেন নজরুল ইসলাম করোনার ধাক্কায় বন্ধ হয়েছে হাজার হাজার কাঁকড়া খামার হারিয়ে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী মৃৎশিল্প

শীতের শুরুতেই গরম কাপড় কেনার হিড়িক

দৃষ্টিপাত ডেস্ক :
  • Update Time : সোমবার, ২৩ নভেম্বর, ২০২০

খুলনা প্রতিনিধি ঃ শীতের মৌসুম শুরু হয়েছে। প্রকৃতির নিয়মে এ বছরের জন্য আপাতত গরমের বিদায় হয়েছে। রাতের কুয়াশা আর উত্তরের হিমেল বাতাস একটু একটু করে শীতের তীব্রতাকে বাড়িয়ে তুলছে। শীতে সবচেয়ে বেশি অসহায় অবস্থায় আছেস শ্রমজীবী মানুষ। এ শীত থেকে বাঁচতে তাই তারা ছুটছেন গরম কাপড়ের খোঁজে। তাই শীতবস্ত্র কিনতে তাদের ফুটপাতের দোকানগুলোতে ভিড় করতে দেখা যাচ্ছে। ফুটপাত থেকে শুরু করে অভিজাত মার্কেটগুলোতে গরম কাপড়ের চাহিদা বেড়েছে। মৌসুমি ব্যবসায়িরা শহরের অলিতে-গলিতে কাপড়ের দোকান সাজিয়ে বসেছেন। এসব দোকানে কম দামে বিদেশি পুরোনো গরম কাপড় পাওয়া যায়। প্রতিদিন শত শত নারী-পুরুষ আসছেন এ দোকানগুলোতে। সকাল থেকে শুরু করে রাত ১০টা পর্যন্ত এসব দোকান খোলা থাকে। কম পয়সায় পছন্দের গরম কাপড় দেখে শুনে কিনছেন ক্রেতারা। চিত্রালী মার্কেটের কাপড় ব্যবসায়ী জানান, দোকানে দেশী ও বিদেশী সব ধরনের গরম কাপড় পাওয়া যায়। তবে ক্রেতারা বিদেশী জ্যাকেট ও সোয়েটারের প্রতি বেশ ঝুঁকছে। আমরা গত কয়েকদিন আগে দোকানে গরম কাপড় ওঠাতে শুরু করেছি। গত কয়েক দিন আগে দোকানে তেমন কাপড় বিক্রি হয়নি। তবে আজ দু’দিন ক্রেতাদের আগমন একটু বেশি। বর্তমানে জ্যাকেট ও সোয়েটার বিক্রি বেশি হচ্ছে। মার্কেটের আরেক এক দোকানী বলেন, মৌসুমের ব্যবসা শুরু হয়ে গেছে। তার দোকানে সব বয়সী মানুষের গরম কাপড় রয়েছে। খালিশপুর থেকে মার্কেটে আসা রুমানা আক্তার রানু বলেন, বিকালের পর থেকে কুয়াশা দেখা যায়। শীত মানে বাড়তি ঝামেলা। ছেলেকে শীতের প্রকোপ থেকে রক্ষার জন্য তিনি একটি জ্যাকেট ক্রয় করেছেন। তবে গতবারের তুলনায় এবার গরম কাপড়ের দাম একটু বেশি নিয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। বেশি দাম নেওয়ার কারণ জনতে চাইলে দোকানি করোনাভাইরাসের দোহায় দেন। অন্যদিকে নিন্ম আয়ের মানুষ খুলনা স্টেডিয়াম মার্কেটের সামনে থেকে সাধ এবং সাধ্যের মধ্যে তাদের প্রিয়জনের জন্য কাপড় ক্রয় করছেন। রহিম নামের একজন ভ্যান চালক আইচগাতি থেকে এসেছিলেন তার পরিবারের জন্য গরম কাপড় ক্রয় করতে। দাম সস্তা থাকায় তিনি এখান থেকে গরম কাপড় ক্রয় করে খুব খুশি।

শেয়ার

আরও খবর
© All rights reserved © 2020 dainikdristipat.com
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazardristip41